এডিট করা ভিডিওতে নুরের বক্তব্য বিকৃতভাবে উপস্থাপন

নুরের দুটি ভিডিওর ক্লিপ পাশাপাশি যুক্ত করা হয়েছে
নুরের দুটি ভিডিওর ক্লিপ পাশাপাশি যুক্ত করা হয়েছে  © টিডিসি ফটো

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) সদ্য সাবেক সহ-সভাপতি (ভিপি) নুরুল হক নুরের এডিট করা একটি ভিডিও ছড়িয়েছে। এতে তার বক্তব্য বিকৃতভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে বলে জানিয়েছে বিডিফ্যাক্টচেক। ১ মিনিট ৭ সেকেন্ডের ওই ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, নুর কথা বলছেন এমন ভিন্ন দুটি ভিডিওর ক্লিপ পাশাপাশি যুক্ত করা হয়েছে।

ভিডিওটির প্রথম থেকে ২৬ সেকেন্ড পর্যন্ত সময়ে শোনা যায় নুর বলছেন, ‘হাসান আল মামুনের সাথে ওই ছাত্রী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামিক স্টাডিজের ছাত্রী, তার প্রেমের সম্পর্ক ছিল এবং হাসান আল মামুনের কথায় তার বাসায় যায় এবং বাসায় গেলে হাসান আল মামুন বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে তাকে ধর্ষণ করে। ২৪ তারিখ ঢাকার নীলক্ষেতে সেই মেয়েটির সাথে আমরা এই বিষয়টা মীমাংসা করার জন্য বসেছিলাম।’

এর পরের অংশে নুর বলছেন, ‘এই শিক্ষার্থী আমার কাছে কোনো অভিযোগ দেয়নি। আমার কাছে দুই থেকে আড়াই মাস আগে একবার ফোন দিয়েছিলো জাস্ট যে ভাই আমি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের একজন শিক্ষার্থী বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেসা হলে থাকি। আমি একটু সমস্যায় পড়েছি আপনার একটু সহযোগিতা চাই। আমি বলেছি যে ঠিক আছে তুমি কী ধরনের সমস্যায় পড়েছো বলো আমি সহযোগিতা করবো। সে বলেছে যে আমি এখন ময়মনসিংহ আছি ঢাকায় এসে আমি আপনার সাথে দেখা করবো এবং আমি আপনাকে বিষয়টি খুলে বলবো। কিন্তু সে কিন্তু ওই একদিন ফোন দিয়েছে তারপরে ঢাকা এসেছে কিনা আমাকে কিন্তু আর কখনোই ফোন দেয়নি, আমার সাথে তার আর কথাও হয়নি।’

ফেসবুকের ওই ভিডিওতে স্পষ্টতই দেখা যাচ্ছে, ভিডিওটির দুই অংশে নুর পরস্পরবিরোধী বক্তব্য দিয়েছেন। নিজের বক্তব্যের আপাত দৃষ্টিতে মনে হওয়া এই পরস্পর বিরোধিতার প্রতি ইঙ্গিত করে ১ মিনিট ৭ সেকেন্ডের ভিডিওটির মধ্যে টেক্সট যুক্ত করা হয়েছে- ‘ভন্ড নুরার পল্টিবাজি।

‘আমজনতা’ নামে একটি ফেসবুক পেজে ভিডিওটি ২ অক্টোবর পোস্ট করা হয়। এরপর Sonjit Chandra Das নামে আরেকটি পেজে ভিডিওটি পোস্ট করা হয়েছে আজ রবিবার (৪ অক্টোবর)।

ফ্যাক্টচেক: BD FactCheck এর যাচাইয়ে দেখা যাচ্ছে, উপরিউক্ত ভিডিওটি এডিট করে নুরের বক্তব্য বিকৃতভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে। প্রথম ২৬ সেকেন্ডের ক্লিপটি নেয়া হয়েছে Nurul Haque Nur নামক একটি পেজ থেকে গত ২৩ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যা ৬টা ১৮ মিনিটে নুরুলহক নুরের একটি 'লাইভ' ভিডিও থেকে। ভিন্ন ভিন্ন জায়গা থেকে কেটে প্রাসঙ্গিকতাহীনভাবে নুরের বক্তব্যের অর্থ বদলে গেছে এডিট করা ভিডিও ক্লিপে।

২৩ সেপ্টেম্বরের লাইভ ভিডিওর ২ মিনিট ২০ সেকেন্ড থেকে ৩ মিনিট ০৬ সেকেন্ড পর্যন্ত নুর বলেছেন, ‘...যে বিষয়টি আপনারা অবগত আছেন যে গত ২১ সেপ্টেম্বর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন ছাত্রী তিনি লালবাগ থানায় একটি মামলা দায়ের করলেন । তার মামলায় যে বিষয়গুলো আরকি তিনি তুলে ধরেছেন , আমি এজাহারে যতটুকু পড়েছি, লালবাগ থানার অভিযোগে তিনি বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের যে আহ্বায়ক হাসান আল মামুনকে ১ নাম্বার আসামী করেছেন যে, হাসান আল মামুন তাকে; হাসান আল মামুনের সাথে ঐ ছাত্রী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামীক স্টাডিজ বিভাগের ছাত্রী, তার প্রেমের সম্পর্ক ছিলো এবং হাসান আল মামুনের কথায় তার বাসায় যায় এবং বাসায় গেলে হাসান আল মামুন বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে তাকে ধর্ষণ করে।’

নুরের লাইভ ভিডিওর ৪ মিনিট ৪৫ সেকেন্ড থেকে ৫ মিনিট ৩৫ সেকেন্ড পর্যন্ত তিনি আরও বলেন, ‘..এটি এ কারণে বলছি যে, তার কথা বার্তি (বার্তা) এবং এজাহারে যে ঘটনাগুলি তিনি যেভাবে উল্লেখ করেছেন তার সাথে তেমন মানে যথেষ্ট অসঙ্গতি রয়েছে। এটা গেলো লালবাগ থানার মামলা এজাহারে যিনি লিখেছেন যেভাবে লিখেছেন সেগুলো নিয়ে একটু বললাম। সেখানে তিনি বলেছেন, আমার কথা তিনি উল্লেখ করেছেন যে ভিপি নুরের কাছে তিনি অভিযোগ দিয়েছিলেন যেহেতু হাসান আল মামুন ছাত্র অধিকার পরিষদ করে, ভিপি নুরের সংগঠন করে সেখানে তার কাছে বিচার চেয়েছিলেন। কিন্তু ভিপি নুর তার বিচার না করে সময় কালক্ষেপণ করেছেন এবং তাকে হুমকি দিয়েছেন । তাকে পতিতা বলে অনলাইনে প্রচার করান বা অনলাইনে হ্যারাজমেন্টের হুমকি দিয়েছিলেন এবং ২৪ তারিখ ঢাকার নীলক্ষেতে সেই মেয়েটির সাথে নাকি আমরা এই বিষয়টা মিমাংসা করার জন্য বসেছিলাম।’

নুরের লাইভ ভিডিওর এই দুটি অংশ থেকে কেটে এডিট করা ভিডিওতে দেখানো হয়েছে নুর বলছেন, ‘হাসান আল মামুনের সাথে ওই ছাত্রী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামিক স্টাডিজের ছাত্রী, তার প্রেমের সম্পর্ক ছিল এবং হাসান আল মামুনের কথায় তার বাসায় যায় এবং বাসায় গেলে হাসান আল মামুন বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে তাকে ধর্ষণ করে। ২৪ তারিখ ঢাকার নীলক্ষেতে সেই মেয়েটির সাথে আমরা এই বিষয়টা মীমাংসা করার জন্য বসেছিলাম।’

অর্থাৎ, নুর যে বক্তব্যে তার এবং হাসান আল মামুনের বিরুদ্ধে উল্লেখ করা এজাহারের অভিযোগগুলো তুলে ধরেছেন সেই বক্তব্যের আগের, পরের এবং মাঝখানের কিছু অংশ বাদ দিয়ে এমনভাবে তুলে ধরা হয়েছে যাতে মনে হতে পারে নুর নিজের এবং হাসান আল মামুনের বিরুদ্ধে করা বাদীর অভিযোগগুলো স্বীকার করে নিচ্ছেন।

নুরের লাইভ ভিডিওর লিংক


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ