গবেষক মুশফিকের চেষ্টায় আমেরিকা থেকে সাড়ে ৫ কোটি মাস্ক আসছে

করোনা
আমেরিকা থেকে সাড়ে ৫ কোটি মাস্ক আসছে বাংলাদেশে।  © ছবি : সংগৃহীত

গবেষক মুশফিক মোবারকের চেষ্টায় আমেরিকার হেইনস ইনকরপোরেশন থেকে সাড়ে ৫ কোটি মাস্ক পেতে যাচ্ছে বাংলাদেশ, এখন শুধু সারাদেশে বিতরণের অপেক্ষা। ব্র্যাক, অন্যান্য এনজিও ও ডিসি অফিসের মাধ্যমে সারদেশে মাস্কগুলো বিনামূল্যে বিতরণ করা হবে বলে জানানো হয়েছে। 

বুধবার (১২ জানুয়ারি) ব্রাকের নির্বাহী পরিচালক আসিফ সালেহ তার ভেরিফাইড ফেসবুক একাউন্টে দেওয়া এক স্ট্যাটাসে এই তথ্য জানিয়েছেন। আজ রাজধানীতে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে এসব মাস্ক আনুষ্ঠানিকভাবে হস্তান্তরের কথা রয়েছে। এতে উপস্থিত থাকবেন যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত আর্ল আর মিলার। এতে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থাকবেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের সচিব লোকমান হোসাইন মিয়া।

আরও পড়ুন: পাবিপ্রবির প্রথম শিক্ষার্থী হিসেবে আমাজনে চাকরি পেলেন রায়হান

জানা যায়, ইয়েল ইউনিভার্সিটি ও ওপেন সোসাইটি ফাউন্ডেশন (ওএসএফ) এর উদ্যোগে ব্র্যাকের নিকট এই মাস্ক হস্তান্তর করা হচ্ছে।

ওই স্ট্যাটাসে আসিফ সালেহ জানান, 'এই মাত্র এনবিআর এর ছাড়পত্র পেলাম। পোর্ট থেকে শুল্ক ছাড়া মাস্ক বের করা যাবে। প্রায় দুই কোটি কাপড়ের মাস্ক নিয়ে জাহাজ অপেক্ষা করছে। কিছু দিনের মধ্যে আরো সাড়ে তিন কোটি মাস্ক আসবে। মোট সাড়ে পাঁচ কোটি মাস্ক আগামী দিনগুলোতে সারা বাংলাদেশে বিনা মূল্যে বিতরণ করা হবে। ব্র্যাক, অন্যান্য এনজিও (বেসরকারি সংস্থা) ও বিভিন্ন ডিসি (ডিস্ট্রিক্ট কমিশনার) অফিসের মাধ্যমে এইসব মাস্ক বিতরণ করা হবে।

গত জুলাই মাসে মুশফিক মোবারক যখন বললো যে আমেরিকার কোম্পানি ‘হেইনস ইনকরপোরেশন’ থেকে মাস্ক পাওয়া যেতে পারে, তখন আমাদের ধারণায় ছিল না সংখ্যায় এত বেশি হতে পারে । কিন্ত তার একক উদ্যোগে এই ডোনেশানটা পাওয়া সম্ভব হয়। সে বলল দ্রুত না নিলে এগুলো অন্য দেশে চলে যাবে এই মাস্ক। রাজি হয়ে গেলাম মাঠে নামতে।

আরও পড়ুন: ৭৪ শতাংশেরও বেশি আসন ফাঁকা শাবিপ্রবিতে

অন্য গবেষকদের থেকে মুশফিকের পার্থক্য হলো সে শুধু  গবেষণা টাই সারে না, পাশাপাশি মাঠে যাতে এটি কাজে লাগে এবং তার জন্য যা যা করা দরকার, নিজের কাজের বাইরে গিয়ে করে। তার মাস্ক ব্যবহারের উপকারিতা এবং কি ভাবে অভ্যাস পরিবর্তন করা যায়, এ ব্যাপারে তার গবেষণা বিশ্বে সমাদৃত হয়। পশ্চিমা বিশ্বের বাইরে করা এত বড় গবেষণা এর আগে আর হয় নাই। কিন্তু এতে সে বসে থাকেনি। তো সেই মুশফিকের সঙ্গে জোট বেঁধে যখন এই মাস্ক দেশে আনার প্ল্যান করলাম, তখন কি আর বুঝেছি কত ধানে কত চাল। শিপিং খরচ , ট্যাক্স এক্সেমশান ও ওভার অল কোঅর্ডিনেশন, সে আরেক উপন্যাস।

স্ট্যাটাসে তিনি আরও জানান, কিন্তু যাকে যখন বলা হয়েছে, তখনই সাহায্য করেছেন। আমেরিকা থেকে শিপিং এর বড় একটা খরচ দিয়েছেন এক দাতা। সরকার থেকে সব অনুমতি মিলেছে এবং অবশেষে শেষ ধাপটি পূরণ হয়েছে আজকে। আগামীকাল জাহাজ থেকে সারা বাংলাদেশে ছড়িয়ে পড়বে এই সাড়ে পাঁচ কোটি কাপড়ের মাস্ক। জাস্ট ইন টাইম। এই পুরো ব্যাপারটি ঘটত না, যদি না কয়কজন মানুষ তার ঘুম হারাম না করে তাদের কাজের বাইরের এই 'অকাজ'গুলো করত। ব্র্যাকের ভেতরে ও বাইরের আমার সকল সহকর্মীকে এই সব অকাজের জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ। কাল থেকে শেষ পর্যায়ের কাজ শুরু। জাস্ট ইন টাইম।

আরও পড়ুন: অনলাইন মিটিংয়ে ঢুকে ভিসিকে অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ!

উল্লেখ্য, সম্প্রতি মাস্ক পরলে করোনায় আক্রান্তের সম্ভাবনা ৩৪ শতাংশ পর্যন্ত কমে যায় বলে নতুন এক গবেষণার ফলাফলে এ তথ্য উঠে এসেছে। গবেষণাটি পরিচালনা করেছে স্ট্যানফোর্ড মেডিসিন স্কুল ও ইয়েল ইউনিভার্সিটির গবেষকরা। গত ১ সেপ্টেম্বর ইনোভেশনস ফর পোভার্টি অ্যাকশনের ওয়েবসাইটে গবেষণার ফলাফল প্রকাশিত হয়। স্থানীয় এনজিও গ্রিনভয়েস এবং ইনোভেশনস ফর পোভার্টি অ্যাকশন বাংলাদেশ এ গবেষণার অংশীদার ছিল। যেখানে আহমেদ মুশফিক মোবারক হলেন ওই গবেষণা দলের প্রধান।


মন্তব্য

x