অক্সফোর্ডের বিজনেস স্কুলের দায়িত্বে প্রথম বাঙালি সৌমিত্র দত্ত

অক্সফোর্ড
অধ্যাপক সৌমিত্র দত্ত  © ফাইল ছবি

আবারও একবার সাফল্যের মুকুট উঠল বাঙালির মাথায়। লন্ডনের অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের শীর্ষস্থানে বসতে যাচ্ছেন এক বাঙালি অধ্যাপক। অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজনেস স্কুলের ডিন হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন এক অধ্যাপক।

ওই অধ্যাপকের নাম সৌমিত্র দত্ত। আগামী জুন মাসের শুরু থেকেই তিনি নতুন দায়িত্বভার গ্রহণ করবেন বলেই জানানো হয়েছে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে।

জানা গেছে, দিল্লির আইআইটি থেকে বিটেক, তারপর ইউনিভার্সিটি অব ক্যালিফর্নিয়া, বার্কলে থেকে এমএস ও পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করেন তিনি। বর্তমানে নিউইয়র্কের কর্নেল বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘কর্নেল এসসি জনসন কলেজ অব বিজনেসে’ অধ্যাপনা করেন সৌমিত্র। সেখানে অধ্যাপনা করেন তার স্ত্রী লুর্দ কাসানোভাও।

আরও পড়ুন: সমাবর্তনে যোগ দিতে এসে লাশ হয়ে ফিরলেন ওয়ালিদ

অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজেনেস স্কুলের ডিন হিসেবে নিয়োগ পাওয়ার এই খবরে আপ্লুত অধ্যাপক সৌমিত্র দত্ত। তিনি বলেন, তাঁর মেয়ে সারাও অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকেই পড়াশোনা করেছেন। বিজনেস স্কুলের ডিন হিসেবে নিযুক্ত হয়ে তিনি নিজেকে খুবই সম্মানিত মনে করছেন। বিশ্বমানের এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অন্যান্য অধ্যাপক ও পড়ুয়াদের সঙ্গে কাজ করার জন্য তিনি অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছেন।

এর আগে, শিক্ষাক্ষেত্রে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখেছেন অধ্যাপক দত্ত। বর্তমানে, গ্লোবাল বিজনেস স্কুলের চেয়ারপার্সন হিসেবে কর্মরত রয়েছেন তিনি। এছাড়াও, এর আগে ফ্রান্সের INSEAD-তে ১৩ বছর নেতৃত্বপ্রদানকারীর ভুমিকা পালন করেছেন তিনি। এছাড়াও, বেশ কিছু আন্তর্জাতিক সংস্থার বোর্ড মেম্বারও থেকেছেন তিনি। এছাড়াও, বেশ কিছু সরকারের উপদেষ্টা হিসেবেও কাজ করেছেন তিনি।

আরও পড়ুন: স্কুলে ক্লাস করছে রোবট, শিক্ষার্থী বাসায়

অধ্যাপক দত্তেরন নিয়োগ প্রসঙ্গে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য লুই রিচার্ডসন বলেন, ‘‘অধ্যাপক দত্ত বিজনেস স্কুলের ডিন হওয়ার প্রস্তাবটি গ্রহণ করাতে আমরা খুবই খুশি। তিনি এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আন্তর্জাতিক চিন্তাধারা, বিস্তর অভিজ্ঞতা ও প্রযুক্তি ও বাণিজ্যিক পড়াশোনায় প্রচুর জ্ঞান নিয়ে আসবেন। আমি তাঁর সঙ্গে কাজ করার জন্য অপেক্ষা করছি।’’

এর আগে এই পদে ছিলেন অধ্যাপক পিটার টুফানো। ১০ বছর এই পদে থাকার পর ২০২১ সালের জুন মাসে পদত্যাগ করেন তিনি। এরপর থেকে অন্তর্বর্তীকালীন ডিন হিসেবে কাজ করছেন অধ্যাপক সু ডপসন।


মন্তব্য

x