এগিয়ে এলেন পশুপ্রেমী চবি শিক্ষার্থী

ভবনের সরু গলিতে আটকা ৭টি কুকুরছানার বেঁচে ফেরার গল্প

হাসান মাহমুদ আরাফাত
চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী পশুপ্রেমী হাসান মাহমুদ আরাফাত  © টিডিসি ফটো

চট্টগ্রাম নগরীর হালিশহরে একটি ভবনের দেয়ালের পাশে অত্যন্ত সরু একটি জায়গায় আটকে পড়া ৭টি কুকুরছানাকে উদ্ধার করেছেন পশুপ্রেমী বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী হাসান মাহমুদ আরাফাত। হাত দিয়েই এই উদ্ধার অভিযান সফলভাবে সম্পন্ন করেছেন তিনি। দীর্ঘদিন ধরেই অবলা এসব প্রাণীদের সাহায্য করে আসছেন তিনি।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ভবনের দেয়ালের পাশে সরু একটি জায়গায় কুকুরছানাগুলো আটকে পড়ায় বাঁচার জন্য তারা চিৎকার করছিল। এদের ছবি তুলে সাতটি কুকুরছানা আটকে আছে বলে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে একটি পোস্ট করেন হালিশহর নয়াবাজারের বাসিন্দা আবিদ হাসান। অবলা প্রাণীদের জন্য কাজ করা ‘এনিম্যাল কেয়ার অব চট্টগ্রাম’ নামের একটি ফেসবুক গ্রুপে সাহায্য চেয়ে তিনি এই পোস্ট করেন। তা দেখে পোস্টকারীর সাথে যোগাযোগ করে কুকুরছানাগুলো বাঁচাতে উদ্ধারের জন্য ছুটে যান চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) শিক্ষার্থী পশুপ্রেমী হাসান মাহমুদ আরাফাত। এ সময় কুকুর ছানাগুলো উদ্ধারের জন্য তেমন কোনো সরঞ্জাম ছিল না। পরে পোস্ট দিয়ে সাহায্য চাওয়া ব্যক্তির সহযোগিতায় লোহার শিক দিয়ে টেনে অনেকক্ষণ চেষ্টার পরে একে একে সাতটি কুকুরছানা উদ্ধার করেন তিনি।

আরও পড়ুন: চবি ভর্তি: আবেদন দুই লাখ ছুঁই ছুঁই, ৭ মে পর্যন্ত চলবে

হাসান মাহমুদ আরাফাত বলেন, এমন উদ্ধার কাজ আগেও করেছি। যেখানেই কুকুরের অসুস্থতার কথা শুনি সেখানেই ছুটে যাই সাধ্যমতো চেষ্টা করি। তবে এবারের উদ্ধার কাজটি বেশ কষ্টসাধ্য ছিল। তবে কুকুরছানাগুলোকে উদ্ধার করে বাঁচাতে পেরে এখন ভালো লাগছে।

হাসান বলেন, ছোটবেলা থেকেই পশুর প্রতি একটা দূর্বলতা কাজ করে। মানুষজন না বুঝেই কুকুরের প্রতি অমানবিক আচরণ করে যা কোনোভাবেই কাম্য না। কুকুর হচ্ছে অবলা প্রাণী এদের প্রতি আমাদের উচিত মানবিক আচরণ করা। এরা পরিবেশের জন্যও অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

দীর্ঘদিন ধরেই পথের কুকুর ও বিড়ালের সেবা দিয়ে যাচ্ছেন তিনি। কুকুরের চিকিৎসা ও ভ্যাকসিন কার্যক্রমগুলোও সম্পূর্ণ নিজ অর্থায়নে করছেন হাসান মাহমুদ আরাফাত।


মন্তব্য