ডাক্তার বললেন মৃত— দাফনের আগে নড়ে উঠল শিশুটি

ঢামেক
ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল  © সংগৃহীত

ডাক্তার মৃত ঘোষণার পর দাফন করার আগে নড়েচড়ে উঠে জীবনের জানান দিল এক নবজাতক। ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ডাক্তারের মৃত্যু ঘোষণার পরে মোহাম্মদপুরের বসিলা কবরস্থান থেকে শিশুটিকে আবার ঢামেকই ফিরিয়ে নেওয়া হয়েছে।

শুক্রবার সকালে এ ঘটনায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বলছে, নবজাতকটি ছিল অপরিণত, তাই শুরুতে ‘রেসপন্স’ ছিল না তার। তবে এখন তারা শিশুটিকে বাঁচানোর চেষ্টা করছেন।

জীবন সঙ্কটে থাকা মেয়েটি গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার মালেঙ্গা গ্রামের ইয়াসিন মোল্লা ও শাহিনুর বেগমের দ্বিতীয় সন্তান।

অন্ত্বসত্ত্বা শাহিনুর তিনদিন আগে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ১১০ নম্বর ওয়ার্ডে ভর্তি হন। শুক্রবার ভোরে অস্ত্রোপচার ছাড়াই কন্যা সন্তানের জন্ম দেন তিনি।

জন্মের পরপরই ওই নবজাতককে মৃত ঘোষণা করে তার বাবা ইয়াসিনের হাতে তুলে দেন চিকিৎসক। দাফনের জন্য মেয়েকে বসিলা কবরস্থানে নিয়ে যান ইয়াসিন। সেখানেই শিশুটি নড়ে ওঠে।

পরে দ্রুত শিশুটিকে তিনি ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসেন।

এ বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এ কে এম নাসির উদ্দিন বলেন, অপরিণত হওয়ায় শুরুতে বাচ্চাটার রেসপন্স পাওয়া যাচ্ছিল না। সে কারণে চিকিৎসক ধরে নিয়েছিলেন তার প্রাণ নেই। এখন আমরা নবজাতকটিকে বাঁচানোর চেষ্টা করছি।

এর আগে ২০১৫ সালেও ঢাকা মেডিকেলে মৃত ঘোষণার পর দাফনের আগে এক নবজাতকের নড়ে ওঠার ঘটনা আলোচনার জন্ম দিয়েছিল। সেই শিশুটিকে পরে হাসপাতালে ফিরিয়ে এনে চিকিৎসা দিয়েও বাঁচানো যায়নি।


মন্তব্য