এবার গণমাধ্যম প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা দিলেন কুবি উপাচার্য

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়
কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়  © ফাইল ফটো

সংবাদ প্রকাশের জেরে এক শিক্ষার্থীকে বহিষ্কারের পর এবার বিশ্ববিদ্যালয়ে স্থানীয় একটি গণমাধ্যম প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছেন কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এএফএম আবদুল মঈন। 

রোববার বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়মিত হকার ইউসুফ মিয়া পত্রিকা বিলি করতে আসলে তাঁকে স্থানীয় ‘দৈনিক আমাদের কুমিল্লা’ কুবিতে না দেওয়ার নির্দেশনা দেন জনসংযোগ কর্মকর্তা (অতিরিক্ত দায়িত্ব) মোহাম্মদ এমদাদুল হক।

বিষয়টি নিয়ে এমদাদুল হকের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, উপাচার্য কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে দৈনিক আমাদের কুমিল্লা রাখতে নিষেধ করেছেন। কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের কোথাও ঢুকতে পারবে না আমাদের কুমিল্লা।

তবে কী কারণে এমন নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে, সে বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে জনসংযোগ কর্মকর্তা বলেন, আমি কিছু জানি না। উপাচার্য স্যার নিষেধ করেছেন।

এ বিষয়ে জানতে উপাচার্য অধ্যাপক ড. এএফএম আবদুল মঈনের সাথে একাধিকবার মুঠোফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তার সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

এর আগে উপাচার্যের বক্তব্য উদ্ধৃত করে সংবাদ প্রকাশের জেরে দৈনিক যায়যায়দিন পত্রিকার কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি ইকবাল মনোয়ারকে বহিষ্কার করে কুবি কর্তৃপক্ষ। তবে ইকবালের দাবি, শুধু সেদিনের সংবাদ নয়, এর আগেও উপাচার্যের বিভিন্ন অনিয়ম নিয়ে সংবাদ প্রকাশে করেছেন ইকবাল। সেজন্য আগে থেকেই তাঁর ওপর ক্ষিপ্ত ছিলেন উপাচার্য। ২ আগস্ট তাঁকে বহিষ্কার করে উপাচার্য নিজের ক্ষোভের বহিঃপ্রকাশ করেছেন মাত্র।

ইকবালের বহিষ্কার কাণ্ডে উপাচার্যের সমালোচনা করে সংবাদ প্রকাশ করেছিল কুমিল্লার শীর্ষস্থানীয় দৈনিক আমাদের কুমিল্লা। এছাড়া পত্রিকাটিতে বিভিন্ন সময় কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন অনিয়ম নিয়ে সংবাদ প্রকাশ হয়েছে। এর জের ধরেই দৈনিক আমাদের কুমিল্লার ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছেন বলে ধারণা করেছেন সংশ্লিষ্টরা।