১ দিন নয়, দুর্গাপূজার ছুটি ৫ দিন চায় শিক্ষার্থীরা

এশিয়া প্যাসিফিক বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন
এশিয়া প্যাসিফিক বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন  © টিডিসি ফটো

দুর্গাপূজায় এক দিনের পরিবর্তে ৫ দিনের ছুটির দাবিতে মানববন্ধন করেছেন এশিয়া প্যাসিফিক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। আজ সোমবার (১১ অক্টোবর) বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের ফটকের সামনের এ কর্মসূচি পালিত হয়।

কর্মসূচিতে বিশ্ববিদ্যালয়টির সাবেক শিক্ষার্থী অ্যাডভোকেট ফরহাদ হোসেন, মাহমুদুল হাসান সবুজ, আব্দুর রহিম, আবু বক্কর সিদ্দিক প্রমুখ অংশ নেন। এতে বিশ্ববিদ্যালয়টি সাবেক শিক্ষার্থী রঞ্জন সরকারের সঞ্চালনায় সভাপতিত্ব করেন মোহাম্মদ আসিফ হাওলাদার।

মানববন্ধনের অংশ নিয়ে শিক্ষার্থীরা বলেন, স্বাধীনতার ৫০ বছরেও আমাদের ধর্মীয় বৈষম্যের শিকার হতে হচ্ছে। শারদীয় দুর্গাপূজা হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় অনুষ্ঠান। এই দুর্গাপূজার আনুষ্ঠানিকতা পাঁচ দিনের হলেও ছুটি মেলে একদিনের। এটি সনাতন ধর্মাবলম্বীদের জন্য অত্যন্ত হতাশাজনক ও হয়রানিমূলক।

শিক্ষার্থীরা বলেন, অনেকে নিজ এলাকা ছেড়ে দূর-দূরান্তের পড়ালেখার জন্য থাকতে হচ্ছে। আর একদিনের এ ছুটি কখনোই প্রত্যন্ত অঞ্চলগুলোতে পৌঁছে অনুষ্ঠান পালন করে আবার ফিরে আসা সম্ভব নয়। এর ফলে মা ও মাটির টানে শিক্ষার্থীদের নিজ এলাকায় না গিয়ে শহরে অসহায়ভাবে অনুষ্ঠান পালন করতে হচ্ছে।

এশিয়া প্যাসিফিক বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক ক্যালেন্ডার অনুযায়ী, দুর্গাপূজায় শিক্ষার্থীদের জন্য ১ দিনের ছুটি বরাদ্দ রাখা হয়েছে। অন্যদিকে ঈদের জন্য ৫ দিনের ছুটি রাখা হয়েছে।

এক দিনের পরিবর্তে ৫ দিনের ছুটি দাবি করে শিক্ষার্থীরা বলেন, সাংস্কৃতিক স্বাধীনতা ছাড়া গণতান্ত্রিক স্বাধীনতা অর্থহীন। রাষ্ট্র পরিচালনার মূলনীতি মধ্যে অন্যতম হলো ধর্মনিরপেক্ষতা। অথচ সনাতন ধর্মাবলম্বীদের ধর্মীয় বৈষম্যের শিকার হচ্ছে। শিক্ষার্থীরা কর্তৃপক্ষের কাছে ছুটি বৃদ্ধির দাবি জানালেও এর কোনো অগ্রগতি হয়নি।

শিক্ষার্থীদের দাবির বিষয়টি বিশ্ববিদ্যালয়টির কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়টির ট্রেজারার ইশফাক এলাহী বলেন, এটি তার কাজ নয়। তিনি অন্য কারো সাথে কথা বলে নেওয়ার পরামর্শ দেন।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়টির উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. সুলতান মাহমুদের সঙ্গেও যোগাযোগের চেষ্টা করা হয়েছে। তার পিএস ওবায়দুর রহমান মুঠোফোনে জানান, ‘ক্যাম্পাসে গিয়ে উপাচার্য স্যারের সঙ্গে দেখা করা যাবে। তিনি এভাবে কথা বলবেন না।’


মন্তব্য

এ বিভাগের আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ