গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডে বাংলাদেশের আনিসা

গিনেস বুক
সৈয়দা আনিসা মুর্শেদ  © সংগৃহীত

এক ঘণ্টায় ৪২.৩ মিটার লম্বা পুঁতির মালা তৈরি করে গিনেস বুক অব রেকর্ডে নাম লিখিয়েছেন বাংলাদেশের আনিসা। এই মালা তৈরি করতে লেগেছে মোট ১৬৭১টি পুঁতি। এর আগে এই রেকর্ড ছিল ৩২.৭ মিটার একটি পুঁতির মালার। যা থেকে আনিসা প্রায় ১০ মিটার লম্বা পুঁতির মালা তৈরি করে রেকর্ড গড়েছেন।

ঢাকার একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন শিক্ষার্থী সৈয়দা আনিসা মুর্শেদ। বর্তমানে একজন মার্কেটিং ও কনটেন্ট বিশেষজ্ঞ। তিনি ২০ বছর ধরে আছেন পুঁতি শিল্পের সঙ্গে। মাত্র ১০ বছর বয়স থেকে পুঁতির কাজ শিখতে থাকেন এই তরুণী। দীর্ঘ অনুশীলনের মাধ্যমে আয়ত্ত করেন এ শিল্প।  

আনিসা এ বছরের ১২ আগস্ট ‘লংগেস্ট থ্রেড অব বিডস মেড বাই এন ইন্ডিভিজুয়াল ইন ওয়ান আওয়ার’ শিরোনামে গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ড করেন। রেকর্ড এটেম্পটের প্রায় আড়াই মাস পর গত ১ নভেম্বর গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডস থেকে আসে চূড়ান্ত ঘোষণা।

আরও পড়ুন : শুটিং সেটে অভিনেত্রীর রহস্যজনক মৃত্যু

বর্তমানে আনিসা গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডে একক খেতাবধারী একমাত্র বাংলাদেশি নারী। বর্তমানে বাংলাদেশ থেকে গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডের একক খেতাব পেয়েছেন ১৫ জনেরও কম ব্যক্তি। তার মধ্যে আনিসা একজন।

বাংলাদেশি কারিগরদের পুঁতি শিল্প বিশ্বের কাছে তুলে ধরা এবং এটিকে একটি উপার্জনের অন্যতম সেক্টর হিসেবে গড়ে তোলা আনিসার লক্ষ্য।

আনিসা বলেন, পুতি শিল্পের পিছনের সৃজনশীলতা, প্রচেষ্টা এবং সময়কে প্রায়ই উপেক্ষা করা হয় কারণ এটি এখনো খুব জনপ্রিয় শিল্প নয়। বিশেষ করে বাংলাদেশে, যেখানে হস্তশিল্পের পণ্য যথাযথভাবে প্রশংসিত হয় না। পুঁতির কাজ শুধু একটি কারুকাজ নয়; এটি একটি চর্চা যা সৃজনশীলতা, একাগ্রতা এবং ধৈর্য বিকাশে সহায়তা করে।

সূত্র: গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ড


সর্বশেষ সংবাদ