শুধু কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডেই ঝরে পড়েছে ৬০ হাজার শিক্ষার্থী

করোনা
কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ড  © ফাইল ছবি

করোনা পরিস্থিতিতে দেড় বছর পর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার পর সীমিত পরিসরে আয়োজন চলছে মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার। আগামী ১৪ নভেম্বর এসএসসি ও ২ ডিসেম্বর এইচএসসির পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। এবার করোনার প্রভাবের কারণে রেজিস্ট্রেশন করেও পরীক্ষা দিচ্ছে না অনেক শিক্ষার্থী।

এসএসসিতে নিয়মিত শিক্ষার্থী ফরম পূরণ করেছে ১ লাখ ৯৮ হাজার ৮৯৪ জন কিন্তু রেজিস্ট্রেশন করেছিল ২ লাখ ৩৪ হাজার  ৩৮৫ জন। এইচএসসিতে ফরম পূরণ করেছেন ১ লাখ ১৬ হাজার ৪৮০ জন। রেজিস্টেশন করেছিল ১ লাখ ৪১ হাজার ৪৭৪ জন। এর মধ্যে এসএসসিতে ঝরে পড়েছে ৩৫ হাজার ৪৯১ জন এবং এইচএসসিতে ২৪ হাজার ৯৯৪ জন শিক্ষার্থী ঝরে পড়েছে। এ বছর শুধু কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডে ঝরে পড়েছে ৬০ হাজার শিক্ষার্থী।

করোনার প্রভাব, অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত ও বাল্যবিবাহের কারণে এসব শিক্ষার্থী ঝরে পড়েছে। তবে বিগত ৫ বছরের মধ্যে কুমিল্লা, চাঁদপুর, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, নোয়াখালী, লক্ষ্মীপুর, ফেনী জেলা নিয়ে গঠিত কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডে এবারই সব থেকে বেশি এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করবে।

প্রতিষ্ঠান প্রধানরা বলছেন, দীর্ঘবিরতির পরীক্ষার আয়োজন হওয়ায় অনেক শিক্ষার্থীদের সন্ধান পাওয়া যাচ্ছে না। শহর ছেড়ে যাওয়া কিংবা বাল্যবিবাহের ফলে অনেকেই ফরম পূরণের নির্ধারিত সময় পরও কোনো যোগাযোগ করছে না। কেউ কেউ সংসারের হাল ধরতে বিভিন্ন গার্মেন্টস ও কর্মক্ষেত্রে যোগ দিয়েছে।

কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান আবদুস সালাম বলেন, করোনা পরিস্থিতির কারণে অনেকেই যথাসময়ে ফরম পূরণ করতে পারেনি। যদি কোনো শিক্ষার্থী পরীক্ষা দিতে চায় আমাদের কাছে আবেদন করলে তাদেরকে ফরম পূরণের সুযোগ দেওয়া হবে। অর্থাভাবে কেউ যেন ঝরে না পড়ে সেটা আমরা খেয়াল রাখছি।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ