হেফাজত এখন নতুন রাজাকার হয়ে দাঁড়াচ্ছে: জয়

হেফাজত এখন নতুন রাজাকার হয়ে দাঁড়াচ্ছে: জয়
  © ফাইল ফটো

প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় বলেছেন, আমাদের তরুণ-তরুণীদের পক্ষে বলতে চাই, এই মৌলবাদীকে শক্তিকে মুছে ফেলতে হবে। একাত্তরে ছিল জামায়াত আর এখন হেফাজতও সেই নতুন রাজাকার হয়ে দাঁড়াচ্ছে।

স্বাধীনতার চেতনার ওপর যারা হামলা করবে তাদের রাজাকারদের মতো বিচার করা হবে। বাংলাদেশের স্বাধীনতার বিরুদ্ধে যারা কথা বলবে, বাংলাদেশের বিরুদ্ধে যারা কথা বলবে তাদেরকে বাংলাদেশ থেকে মুছে ফেলা হবে বলেও কঠোর হুশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন জয়।

আজ শনিবার (১২ ডিসেম্বর) রাতে ৪র্থ ডিজিটাল বাংলাদেশ দিবস-২০২০ উপলক্ষ্যে ‘ডিজিটাল বাংলাদেশের এগিয়ে যাওয়ার ১২ বছর’ শীর্ষক ওয়েবিনারে প্রধান অতিথি হিসেবে তিনি সমাপনী বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। এর আগে তিনি প্রধান অতিথি হিসাবে মূলপ্রবন্ধও উপস্থাপন করেন।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জনাব জুনাইদ আহমেদ পলক এমপি। অনুষ্ঠানটি ফেসবুক পেজে লাইভ হয়।

সজীব ওয়াজেদ জয় বলেন, আমরা বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে গেছি, এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছি। আমরা বাংলাদেশকে একটি আধুনিক উন্নয়নশীল হিসাবে প্রতিষ্ঠিত করছি, করে ফেলেছি। তবে এখানে দুঃখের বিষয় একটি সতর্কতায় আমি শেষ করতে চাই, সেটা হল যে, একটা শ্রেণি আছে আমাদের দেশে তারা ইতোমধ্যে খুব মাথা উঁচু করেছে দেশকে পিছিয়ে নেওয়ার চেষ্টায়।’

‘তারা হুমকি দিচ্ছে বাংলাদেশকে আফগানিস্তান বানিয়ে দেবে, আমরা কি সেটা চাই? আমরা আবার সেই একটি মান্ধ্যাতা আমলের দেশ হয়ে যাব? সেটা আমরা হতে দেব না। আওয়ামী লীগ সরকার যতদিন আছে আমরা সেটা হতে দেবো না। আমাদের তরুণ-তরুণীদের পক্ষে আমি বলতে চাই, এই মৌলবাদীকে শক্তিকে আমাদের মুছে ফেলতে হবে।’

‘তারা যদি আফগানিস্তান এত পছন্দ করে তাদেরকে বাংলাদেশ থেকে বের করে দিয়ে আফগানিস্তানে পাঠিয়ে দেওয়া উচিত দাবি করে জয় বলেন, ‘জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর জন্ম শতবার্ষিকীতে তারা সাহস করেছে জাতির পিতার মূর্তি ভাঙার। জাতির জনকের মূর্তির ওপর হামলা করাটা কি? এটা হচ্ছে আমাদের স্বাধীনতার চেতনার ওপর হামলা। আমাদের স্বাধীনতার চেতনার ওপর হামরা কারা করেছে, যারা বাংলাদেশের বিরুদ্ধে। তাদেরকে আমরা কি বলি? তাদেকে আমরা কি ডাকি, তাদেরকে আমরা রাজাকার ডাকি। একাত্তরে ছিল জামায়াত আর এখন হেফাজতও সেই নতুন রাজাকার হয়ে দাঁড়াচ্ছে।’

তিনি আরও বলেন, আমরা বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ, বাংলাদেশকে স্বাধীন করেছি, বাংলাদেশকে আধুনিক করেছি। বাংলাদেশকে উন্নয়নশীল করছি সব চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করে। রাজাকারদেরকে মোকাবিলা আমরা করতে জানি।

সজীব ওয়াজেদ জয় বলেন, আমরা বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছি। বাংলাদেশকে আমরা কাউকে পিছিয়ে দিতে দেব না। বাংলাদেশে আওয়ামী লীগ যতদিন ক্ষমতায় আছে, বাংলাদেশের উন্নয়ন হতে থাকবে। আর স্বাধীনতার চেতনা আমরা কাউকে মুছে দিতে দেব না। স্বাধীনতার চেতনার ওপর যারা হামলা করবে তাদের রাজাকারদের মতো বিচার করা হবে। বাংলাদেশের স্বাধীনতার বিরুদ্ধে যারা কথা বলবে, বাংলাদেশের বিরুদ্ধে যারা কথা বলবে তাদেরকে বাংলাদেশ থেকে মুছে ফেলা হবে।

মুজিববর্ষে জাতির পিতাকে স্মরণ করে বঙ্গবন্ধুর দৌহিত্র জয় বলেন, উনার স্বপ্ন, উনার সোনার বাংলা; আমরা বাস্তবায়ন করছি। আমরা পরিশ্রম করছি, এটা উনারই স্বপ্ন ছিল। একটি উন্নয়নশীল বাংলাদেশ। যেখানে কোনো অভাব নেই। যেখানে সব মানুষ ভাল সকল মানুষ ভাল আছে, ধনী আছে। এটাই হচ্ছে ওনার স্বপ্ন সোনার বাংলার স্বপ্ন, আসেন আমরা সোনার বাংলা বাস্তবায়ন করি।


মন্তব্য

এ বিভাগের আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ