‘এসএসসি-এইচএসসিতে অটোপাস দেওয়ার পরিকল্পনা নেই’

পাবলিক পরীক্ষা
এবার এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষায় অটোপাস দেওয়া হচ্ছে না  © ফাইল ফটো

দেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ফের বৃদ্ধি পাওয়ায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি আগামী ২২ মে পর্যন্ত বাড়িয়েছে সরকার। এতে চলতি বছরের এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা অনিশ্চয়তায় পড়ে গেছে। সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে আগামী জুন-জুলাইয়ে পরীক্ষা দুটি নেওয়ার কথা ছিল। তবে ফের ছুটি বাড়ানোয় এ পরীক্ষা আরও কয়েক মাস পিছিয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা জোরালো হয়েছে। তবে এবার অটোপাস দেওয়ার পরিকল্পনা নেই বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা। 

জানা গেছে, আগামী ২৩ মে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুললেও ৬০ কার্যদিবস ক্লাস করিয়ে, এরপর ১৫ দিন বিরতি দিয়ে এসএসসি পরীক্ষা নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। আর ২৩ মে কলেজ খোলা সম্ভব হলে ৮০ কর্মদিবস ক্লাস করিয়ে এইচএসসি পরীক্ষা আয়োজন করা হবে। এর মধ্যে ঈদুল আজহাসহ সরকারি ছুটি থাকায় পরীক্ষা আরও পেছানোর সম্ভাবনা রয়েছে।

এ প্রসঙ্গে আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সাব পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক কমিটির সমন্বয়ক এবং ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক অধ্যাপক এসএম আমিরুল ইসলাম গণমাধ্যমকে বলেন, ‘শিক্ষামন্ত্রী বলেছেন আগে জীবন তারপর পরীক্ষা। এখন যে পরিস্থিতি তাতে পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব হবে না। যখনই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা হবে, সে সময় পূর্বঘোষিত ৬০ ও ৮০ দিন ক্লাস করিয়ে পরীক্ষা নেওয়া হবে।’ এবার অটোপাস দেওয়ার কোনো চিন্তা-ভাবনা নেই বলেও জানান তিনি।

এর আগে গত ২৭ ফেব্রুয়ারি আন্তঃমন্ত্রণালয় সভা শেষে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছিলেন, এসএসসির পরীক্ষার জন্য ৬০ দিন ও এইচএসসির জন্য ৮০ দিন ক্লাস ধরে সংক্ষিপ্ত সিলেবাস প্রকাশ করা হয়েছে। এ সিলেবাস শেষ করে পরীক্ষা দুটি নেওয়া হবে বলে সে সময় জানান তিনি।


মন্তব্য

এ বিভাগের আরো সংবাদ