বিশ্ববিদ্যালয় খোলার দাবিতে জাহাঙ্গীরনগরে বিক্ষোভ

জাহাঙ্গীরনগরে বিক্ষোভ
বিশ্ববিদ্যালয় খোলার দাবিতে জাহাঙ্গীরনগরে বিক্ষোভ  © টিডিসি ফটো

বিশ্ববিদ্যালয় খোলাসহ তিন দফা দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) শিক্ষার্থীরা।

বুধবার (১৫ সেপ্টেম্বর) সকাল সাড়ে ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের কলা ও মানবিকী অনুষদ ভবন হতে মিছিলটি শুরু হয়ে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে প্রশাসনিক ভবনের সামনে গিয়ে সংক্ষিপ্ত সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়।

সমাবেশে বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয় না খোলার পেছনে প্রশাসনের অনিচ্ছাকে দায়ী করেন। এসময় শিক্ষার্থীরা সেপ্টেম্বর মাসের মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয় সচল না করলে কঠোর আন্দোলনের হুমকি দেন। এসময় তারা তিনটি দাবির কথা জানান।

শিক্ষার্থীদের দাবি তিনটি হচ্ছে- আগামী ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল স্বাভাবিক কার্যক্রম সচল করা, ২২ সেপ্টেম্বরের মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয় সচলের তারিখ ঘোষণা করা এবং বিশ্ববিদ্যালয়ে ভ্যাকসিন বুথ স্থাপন করে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের ভ্যাকসিন গ্রহণ সংক্রান্ত জটিলতা দূর করা।

সমাবেশে বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন জাবি সংসদের সাধারণ সম্পাদক রাকিবুল রনি বলেন, দুই মাস ধরে সরকারের বিভিন্ন পর্যায় থেকে শুনছি বিশ্ববিদ্যালয় খুলে দেয়ার কথা। ইতোমধ্যে অনেক বিশ্ববিদ্যালয় সশরীরে পরীক্ষা নিচ্ছে। অনেক বিশ্ববিদ্যালয় তাদের শিক্ষার্থীদের হলে রেখে পরীক্ষা নেয়ার ব্যবস্থা করেছে। আমরা এক্ষেত্রে জাহাঙ্গীরনগরকে দেখেছি টালবাহানার আশ্রয় নিতে।

রাকিব এসময় হুশিয়ারি দিয়ে বলেন, আগামী ২২ সেপ্টেম্বরের মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয় খোলার তারিখ ঘোষণা না করলে ছাত্ররা কি করতে পারে তা দেখিয়ে দেয়া হবে।

সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট জাবি শাখার আহ্বায়ক শোভন রহমান বলেন, আমি একটা কথাই বলবো, সেপ্টেম্বর এর মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয় চালু করতে হবে। অক্টোবর মাসের একটি দিনও আমরা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাইরের আবাসন ব্যবস্থায় থাকতে চাই না।

সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্ট জাবি শাখার সাধারণ সম্পাদক আবু সাঈদের সঞ্চালনায় সমাবেশে আরও বক্তব্য দেন- ইংরেজি বিভাগের শিক্ষার্থী নুরুজ্জামান শুভ, নুর-এ সুলতান রিফাত, ইতিহাস বিভাগের নুসরাত ফারিন ও রসাযন বিভাগের ইকবাল হোসাইন।

বক্তব্য শেষে শিক্ষার্থীরা তাদের দাবি নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. ফারজানা ইসলাম বরাবর একটি স্মারকলিপি দেন।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ