৫০ দেশের প্রতিযোগীদের পেছনে ফেলে সেরা বুয়েটের তাওরেম

বৈশ্বিক প্রতিযোগিতায় সেরা হয়েছেন বুয়েটের তাওরেম সানানু
তামাকের ক্ষতি নিয়ে ইনফোগ্রাফিক্স করে বৈশ্বিক প্রতিযোগিতায় সেরা হয়েছেন বুয়েটের তাওরেম সানানু  © সংগৃহীত

তামাকের ব্যবহার বন্ধের উদ্দেশ্যে একটি বৈশ্বিক প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে দ্বিতীয় হয়েছেন বাংলাদেশে প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী তাওরেম সানানু। ৫০টি দেশের ৭০০ প্রতিযোগীর মধ্যে তিনি এই গৌরব অর্জন করেছেন। তাওরেম সানানু বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থাপত্যবিদ্যা বিভাগের ছাত্রী।

জানা গেছে, বিশ্বব্যাপী তামাকের ব্যবহার বন্ধের লক্ষ্যে চলতি বছরের গ্লোবাল মিডিয়া প্রতিযোগিতার ইনফোগ্রাফিক্স বিভাগে দ্বিতীয় স্থান অর্জন করেন তাওরেম সানানু। ইনফোগ্রাফিক্সে তিনি বিশ্বব্যাপী তামাকের ব্যবহারের কারণে কী পরিমাণ ক্ষতি হয় সে চিত্র তুলে ধরেছেন।

এতে দেখানো হয়েছে, প্রতি বছর বিশ্বের শীর্ষ চার অর্থনীতির দেশ ১২০ কোটি ইউরো ট্যাক্স পরিশোধ করে না। এ ছাড়া এর কারণে বছরে দেড় লাখ শিশু ও ২৫ লাখ নারীর মৃত্যু হয়। তামাক চাষের জন্য বিপুল পরিমাণ বনভূমিও প্রতি বছর উজাড় হয়ে যাচ্ছে। পাশাপাশি এক লাখ ৪০ হাজার কোটি ডলার নষ্ট হচ্ছে স্বাস্থ্যসেবা ও উৎপাদনশীলতার ক্ষতির কারণে।

তাওরেম সানানু নিজের ফেসবুক আইডিতেও এই অর্জনের কথা শেয়ার করেছেন। সেখানে তিনি লিখেছেন, গ্ল্যোবাল সেন্টার ফর গুড গভর্ন্যান্স ইন টোব্যাকো কনট্রোল (জিজিটিসি) এর আয়োজক। এতে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) তামাক নিয়ন্ত্রণ বিষয়ক ফ্রেমওয়ার্কেরও সংশ্লিষ্টরা রয়েছে।

তিনি বলেন, ‘টোব্যাকো ইজ নট গোয়িং অ্যালোন’ থিমে তিনি এ প্রতিযোগিতায় অংশ নেন। তামাক শিল্প শুধু ভোক্তারই নয়, আরও অনেক খাতের ক্ষতি করছে। এতে তামাককে একটি ডুবন্ত জাহাজের সঙ্গে তুলনা করা হয়েছে। ওই জাহাজের কোনো জীবন রক্ষার সক্ষমতা নেই। এই জাহাজ নিরপরাধ মানুষের জীবন নিয়ে নিচ্ছে, পরিবেশের ক্ষতি করছে।

এটি আরও বেশি ক্ষতি করার আগেই থামিয়ে দেওয়ার আহবান জানিয়েছেন তিনি। এ প্রতিযোগিতায় শীর্ষস্থান অর্জনের পেছনে যারা সহযোগিতা করেছে তাদের সবাইকে কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন তিনি।


মন্তব্য

এ বিভাগের আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ