গ্র্যাজুয়েট শিক্ষার্থীদের কাজের ভিসা দেবে ব্রিটেন

গ্র্যাজুয়েট শিক্ষার্থীদের কাজের ভিসা দেবে ব্রিটেন
  © সংগৃহীত

বিশ্বসেরা বিশ্ববিদ্যালয়গুলো থেকে স্নাতক শেষ করা শিক্ষার্থীদের কাজের ভিসা দেবে ব্রিটেন। ব্রেক্সিট-পরবর্তী অভিবাসন ব্যবস্থার সম্প্রসারণে ‘সেরা এবং উজ্জ্বল’ কর্মীদের আকৃষ্ট করতে এ সুযোগ দেয়া হবে। 

লন্ডন ভিত্তিক আন্তর্জাতিক সংবাদ সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনের বলা হয়, ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে বের হওয়ার পর থেকে ব্রিটেন ইউরোপীয় ইউনিয়নের নাগরিকদের অগ্রাধিকার দেয়া বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। সেই সাথে যোগ্যতা এবং ভাষার দক্ষতার ভিত্তিতে র‌্যাংকিং করে পয়েন্ট-ভিত্তিক অভিবাসন ব্যবস্থা চালু করেছে।

দেশটি গত বেশ কয়েক বছর ধরে কঠিন শ্রমবাজারের মুখোমুখি হয়েছে। ব্রেক্সিট এবং করোনার কারণে সংস্থাগুলি সরকারকে প্রবেশ-স্তরের চাকরির নিয়মগুলি শিথিল করার আহ্বান জানিয়েছে।

সোমবার ঘোষিত এই প্রকল্পের অধীনে বলা হয়, বিদেশের শীর্ষ ৫০টি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক বা স্নাতকোত্তর ডিগ্রিধারীরা দুই বছরের কাজের ভিসার জন্য আবেদন করতে পারবেন এবং তাদের পরিবারের সদস্যদের সাথে আনতে পারবেন। যারা ডক্টরেট পাবেন তারা তিন বছরের ভিসার জন্য আবেদন করতে পারবেন।

সরকার থেকে বলা হয়েছে, সফল আবেদনকারীরা দীর্ঘমেয়াদী কর্মসংস্থান ভিসায় স্যুইচ করতে সক্ষম হবে। এ বিষয়ে দেশটির অর্থমন্ত্রী ঋষি সুনাক বলেছেন, এটি ব্রিটেনকে উদ্ভাবন, সৃজনশীলতা এবং উদ্যোক্তাদের একটি আন্তর্জাতিক কেন্দ্র হিসেবে গড়ে তুলতে সক্ষম করবে। "আমরা চাই আগামীকালের ব্যবসাগুলো আজ এখানে গড়ে উঠুক। ্তএজন্ইয তিনি শিক্ষার্থীদের ব্রিটেনে তাদের ক্যারিয়ার গঠনের এই অবিশ্বাস্য সুযোগের সদ্ব্যবহার করার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

নতুন এ সুযোগের মাধ্যমে আবেদনকারীদের অবশ্যই আবেদনের তারিখের পাঁচ বছরের মধ্যে ডিগ্রী লাভ করতে হবে। টাইমস হায়ার এডুকেশন ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটি র‌্যাঙ্কিং, ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটিগুলির একাডেমিক র‌্যাঙ্কিং এবং কোয়াকোয়ারেলি সাইমন্ডস ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটি র‌্যাঙ্কিং এর মধ্যে অন্তত দু’টির সেরা ৫০টি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী হতে হবে।

২০২১ সালের যোগ্য বিশ্ববিদ্যালয়ের সবচেয়ে সাম্প্রতিক একটি তালিকা যুক্তরাজ্য সরকার অনলাইনে প্রকাশ করেছে, এতে দুই ডজনেরও বেশি মার্কিন বিশ্ববিদ্যালয়, পাশাপাশি কানাডা, জাপান, জার্মানি, চীন, সিঙ্গাপুর, ফ্রান্স এবং সুইডেনের প্রতিষ্ঠান রয়েছে। সরকার বলেছে, যে প্রার্থীদের অবশ্যই একটি নিরাপত্তা এবং অপরাধমূলক চেক পাস করতে হবে এবং মধ্যবর্তী স্তরে ইংরেজি বলতে, পড়তে, শুনতে এবং লিখতে সক্ষম হতে হবে।


x

সর্বশেষ সংবাদ