একাধিক প্রেমের প্রতিবাদ করায় জবি ছাত্রীকে শারীরিক হেনস্তা!

চবি
জবি   © সংগৃহীত

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) এক ছাত্রীকে প্রকাশ্যে শারীরিকভাবে হেনস্তার অভিযোগ উঠেছে একই বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় নিজের নিরাপত্তা ও অভিযুক্তের শাস্তির দাবিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. মোস্তফা কামাল বরাবর অভিযোগ দিয়েছেন জবির ওই ছাত্রী। 

মঙ্গলবার (২১ জুন) এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। এর রোববার বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্বিতীয় গেইটে এ ঘটনা ঘটে৷  অভিযুক্ত ছাত্রের নাম আবিদ হাসান, তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের মনোবিজ্ঞান বিভাগের ১২তম ব্যাচের শিক্ষার্থী। এ ঘটনায় ওই ছাত্রী যেন বিষয়টি সকলের সামনে নিয়ে না আসেন, এজন্য ওই ছাত্রীকে নানাভাবে প্রভাবিত করার চেষ্টার অভিযোগও উঠেছে।

জানা গেছে, জবির ওই ছাত্রী ও আবিদ হাসানের মধ্যে এই বছরের শুরুর দিকে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। কয়েক মাস কাটার পর আবিদ হাসান বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্য একটি মেয়ের সাথে আবার প্রেম শুরু করেন। বিষয়টি জানতে পেরে সেই ছাত্রী-এর প্রতিবাদ করলে তাকে মুঠোফোনে বিভিন্ন সময় নানান হুমকি ও অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করা হয়, যার অডিও রেকর্ড এই প্রতিবেদকের কাছে সংরক্ষিত আছে। 

জানা যায়, এরই জের ধরে গত রোববার জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্বিতীয় গেইটে প্রকাশ্যে সেই ছাত্রীকে শারীরিকভাবে হেনস্তা করে আবিদ। প্রত্যক্ষদর্শীদের চোখেও সম্পূর্ণ বিষয়টি ধরা পড়েছে। 

এ ব্যাপারে এক প্রত্যক্ষদর্শী জানান, দ্বিতীয় গেইটের অপর প্রান্তে দাঁড়িয়ে ছিলাম। এক সময় খেয়াল করি কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে আবিদ তাকে (ভুক্তভোগী ছাত্রী) গায়ে জোরে ধাক্কা মারেন৷ আমি দৌঁড়ে সেখানে গেলে আবিদ সেখান থেকে চলে যায়। 

এদিকে প্রকাশ্যে হেনস্তা ও বিভিন্ন সময়ে হুমকি ধামকির ফলে শঙ্কাবোধ করছেন সেই ছাত্রী। এ ঘটনায় অভিযুক্তের যথাযথ শাস্তি দাবি করেছেন তিনি।

আরও পড়ুন : ‘ধারণ ক্ষমতা বিবেচনায় জাবির ভর্তি পরীক্ষার মূল তারিখ’

এ ব্যাপারে তিনি জানান, আমি চাই আমার মত আর কোন মেয়ের সাথেই সে যেন এমন করতে না পারে৷ এজন্য উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়া এখন সময়ের দাবি৷ নাহলে অভিযুক্ত পার পেয়ে যাবে এবং ভবিষ্যতে আরও অনেকের সাথেই এসব করবে। আমাকে নানাভাবে প্রভাবিত করার চেষ্টা ও হুমকি ধামকি দিয়েছে এখনো দিচ্ছে, যেন বিষয়টি নিয়ে না আগাই কিংবা অভিযোগ তুলে ফেলি। 

তবে অভিযুক্ত আবিদ হাসান জানান, ওই মেয়ের সাথে আমার প্রথমে সম্পর্ক ছিলো কিন্তু দীর্ঘদিন আর নেই। আমাকে বিভিন্নভাবে হেনস্তা করার চেষ্টা করছে। 

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. মোস্তফা কামাল জানান, ওই ছাত্রীর অভিযোগ পেয়েছি। বিষয়টি গুরুত্বের সাথে দেখা হচ্ছে। বিভাগীয় চেয়ারম্যানের মাধ্যমে আবেদন পাঠাবে ৷ তদন্ত সাপেক্ষে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


x

সর্বশেষ সংবাদ