‘বিদায় বান্ধবীরা’— লিখে নার্সিং কলেজছাত্রীর আত্মহত্যা

নার্সিং কলেজছাত্রীর আত্মহত্যা
প্রতীকী

দিনাজপুর নার্সিং কলেজ ক্যাস্পাসের নার্সিং হলে তিথি আকতার (১৮) নামে এক শিক্ষার্থী ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। আত্মহত্যার আগে বান্ধবীদের উদ্দেশে তিনি একটি চিরকুট লিখে রেখে যান। তিনি সেখানে লিখেছেন, ‘আমাকে ক্ষমা করে দিয়ো সবাই, কারো মনে যদি কষ্ট দিয়ে থাকি। বিদায় বান্ধবীরা।’

আজ সোমবার (২৩ নভেম্বর) দুপুর পৌনে ১২টার সময় দিনাজপুর নার্সিং কলেজ ক্যাম্পাসের নার্সিং হলের তৃতীয় তলার ৩০৭ নম্বর কক্ষ থেকে তাঁর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়। তিথি আকতার ঠাকুরগাঁও জেলার সদর উপজেলার কুমারপাড়া গ্রামের মো. আলমগীর ইসলামের মেয়ে। তিনি দিনাজপুর নার্সিং কলেজের মিডওয়াইফারি প্রথম বর্ষের ছাত্রী ছিলেন।

আত্মহত্যা করার আগে বান্ধবীদের উদ্দেশে চিরকুটে তিনি লেখেন, ‘আমাকে ক্ষমা করে দিয়ো সবাই, কারো মনে যদি কষ্ট দিয়ে থাকি। বিদায় বান্ধবীরা। ইতি তোমাদের তিথি।’ তার সহপাঠিরা জানান, তিথি আকতার দীর্ঘদিন ধরে মেয়েলি রোগে ভুগছিল। সে কারণেই হতাশা থেকে হয়তো এই পথ বেছে নিয়েছে।

কলেজের অধ্যক্ষ মাগদেলেনা সরেন জানান, সকালে সে ডাইনিংয়ে দেরিতে আসে। এ সময় তাঁর বান্ধবীরা তাঁকে তাড়াতাড়ি নাশতা করে পরীক্ষার কক্ষে আসার জন্য বলে চলে যায়। পরে সে নাশতা করার পর নিজের কক্ষে চলে যায়। কিন্তু সকাল ৯টায় পরীক্ষা শুরু হলেও সে পরীক্ষায় অংশ নেয়নি।

তিনি জানান, পরে তাঁর কক্ষে গিয়ে সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ওড়না দিয়ে গলায় ফাঁস দেওয়া অবস্থায় লাশ ঝুলতে দেখা যায়। সঙ্গে সঙ্গে তাঁর লাশ উদ্ধার করে দিনাজপুরের এম আব্দুর রহিম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে যাওয়া হয়। কর্মরত চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।


মন্তব্য