শেবাচিমে ডাঃ মাসুদকে হঠাতে চিকিৎসা সেবা বন্ধ রেখেছে ইন্টার্নরা

বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল
বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল  © টিডিসি ফটো

বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে কমিশন বাণিজ্য নিয়ে ইন্টার্ন ও চিকিৎসকদের মধ্যে দ্বন্দ্বে অচল করে দেওয়া হয়েছে হাসপাতালটি। বৃহস্পতিবার (২৯ অক্টোবর) রাত সাড়ে ১১টায় জরুরী বিভাগের গেট বন্ধ করে দেন ইন্টার্ন চিকিৎসকরা।

এ সময়ে চিকিৎসা নিতে আসা রোগীরা পড়েন ভোগান্তিতে। পাশাপাশি হাসপাতালের অভ্যন্তরে চিকিৎসা সেবা বন্ধ রেখেছে ইন্টার্ন চিকিৎসকরা। এ বিষয়ে শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজের পরিচালক ডাঃ বাকির হোসেনের মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে তিনি কল রিসিভ করেননি। মোবাইল রিসিভ করেনি সহকারী পরিচালক ডাঃ মনিরুজ্জামন শাহীনও।

তাছাড়া ইন্টার্ন চিকিৎসকদের নেতারাও কেউ কথা বলতে রাজি হনিনি। এমনকি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানায়নি কারা এবং কি কারণে হাসপাতালের জরুরী বিভাগের গেট বন্ধ করে দিয়েছে।

প্রসঙ্গত, কিছুদিন ধরে ইন্টার্ন চিকিৎসক ও সিনিয়র চিকিৎসকদের মাঝে ডায়াগনস্টিক সেন্টারের কমিশন বাণিজ্য নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। সেই সূত্র ধরে ২০ অক্টোবর মেডিসিন বিভাগের সহকারী রেজিস্ট্রার ডাঃ মাসুদকে কক্ষে আটকে মারধর করেন ইন্টার্ন চিকিৎসক নেতা সজল পান্ডে, তরিকুল ইসলামসহ ৮/১০ জন।

এরপর থেকেই ডাঃ মাসুদকে হাসপাতাল ছাড়া করতে উত্তাপ ছড়িয়ে আসছিল ইন্টার্ন চিকিৎসকরা। তারই অংশ হিসেবে চিকিৎসা সেবা বন্ধ রাখা হয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ