তথ্য হারানোর ঝুঁকি, চাপে পড়ে আপডেট বন্ধ করল হোয়াটসঅ্যাপ

হোয়াটসঅ্যাপ
হোয়াটসঅ্যাপ  © ইন্টারনেট

প্রাইভেসি পলিসি সংক্রান্ত পরিবর্তন নিয়ে বিপাকে পড়েছে হোয়াটসঅ্যাপ। এ পরিবর্তন নিয়ে বিভ্রান্তি ছড়িয়ে পড়েছে সারাবিশ্বে। অনেক ব্যবহারকারী ইতিমধ্যেই ছেড়েছেন অ্যাপটি। প্রবল চাপে এবার সেই আপডেট পিছিয়ে দিল হোয়াটসঅ্যাপ। নিজস্ব ব্লগে এতথ্য জানিয়েছে তারা।

আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি ছিল ডেটা শেয়ারিং সংক্রান্ত আপডেট গ্রহণের শেষ সময়। ফেসবুকের মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠানটি জানিয়েছে, প্রাইভেসি এবং সিকিউরিটি সংক্রান্ত মানুষের ভুল ধারণা ভাঙানোর জন্য বিষয়টি স্থগিত রাখা হল। ওই পোস্টে জনপ্রিয় মেসেজিং অ্যাপটির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, ‘সাম্প্রতিক আপডেট নিয়ে প্রচুর মানুষের বিভ্রান্তির তথ্য জানা গেছে। এ আপডেট ফেসবুকের সঙ্গে তথ্য শেয়ার করার ক্ষমতা দিচ্ছে না’।

আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমেকর খবরে জানানো হয়েছে, আগামী ১৫ মে নতুন অপশন আসার আগে এ পলিসি নিয়ে ধীরে ধীরে ব্যবহারকারীদের কাছে যাওয়ার পরিকল্পনা করছে হোয়াটসঅ্যাপ।

এই আপডেটের যে বিষয়ে বিশ্বে ছড়িয়ে পড়েছে— ব্যবহারকারীর চ্যাট সংক্রান্ত তথ্য ফেসবুকের সঙ্গে শেয়ার করতে পারে হোয়াটসঅ্যাপ। মূলত বিভিন্ন বিজ্ঞাপনের জন্যই এটি করা হবে। কিন্তু এ অভিযোগ নাকচ করেছে হোয়াটসঅ্যাপ। ব্যবহারকারীদের উদ্দেশে বলেছে, তারা ব্যক্তিগত মেসেজ দেখতে পারে না, ফোনকলও শুনতে পায় না। শেয়ার করা লোকেশনও দেখতে পায় না। ফেসবুকও পায় না’। সমস্ত তথ্য এন্ড টু এন্ড এনক্রিপটেড থাকে বলেও দাবি করেছে হোয়াটসঅ্যাপ।

আপডেট সম্পর্কে হোয়াটসঅ্যাপ বলেছে, এটা একটি ব্যবসায়িক সেবা। এ ক্ষেত্রে ফেসবুক থেকে হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট ম্যানেজ করতে, তথ্য চালাচালিতে সুবিধা হবে। ব্যবসায়িক ব্যবহার আরও সহজ করতেই ওই আপডেট বলে দাবি করেছে হোয়াটয়অ্যাপ।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ