পাঠাওয়ে বিনিয়োগ করে বড় লোকসানে গো-জেক

পাঠাও
অ্যাপভিত্তিক যাত্রী পরিবহনসহ বিভিন্ন সেবা রয়েছে পাঠাওয়ের  © ফাইল ফটো

রাইড শেয়ারিং প্রতিষ্ঠান পাঠাওয়ে বিনিয়োগ করে ইন্দোনেশিয়াভিত্তিক ট্রান্সপোর্ট সিস্টেম প্রতিষ্ঠান গো-জেক বড় লোকসানের মুখে পড়েছে। এখন তারা তাদের বিনিয়োগ করা এক কোটি ৭০ লাখ ডলার বা ১৪৪ কোটি টাকা লোকসান মনে করছে। সিঙ্গাপুরভিত্তিক গণমাধ্যম টেকইনএশিয়ার বিশেষ প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

প্রযুক্তিভিত্তিক গণমাধ্যমটির খবরে বলা হয়েছে, পাঠাওকে দেয়া অর্থকে ‘রাইট অফ’ ঘোষণা করেছে গো-জেক। এর অর্থ পাঠাওকে এ অর্থ নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত লোন হিসেবে দেওয়া হয়েছি। পরে তা শেয়ারে মূল্যায়ন বা রূপান্তর হওয়ার কথা। কিন্তু পাঠাওকে এখন ডুবতে বসা কোম্পানি হিসেবে মূল্যায়ন করছে তারা। এ টাকা উঠে আসার আশা নেই বলেও তাদের আশঙ্কা। কারণ এ অর্থের শেয়ার দেয়ার অবস্থা নেই পাঠাওয়ের।

তবে গো-জেক বিষয়টি নিয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হয়নি। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, পাঠাওয়ের ক্ষেত্রে এমনটা হওয়াটা খুবই দু:খজনক। পাঠাওয়ের ইউনিকর্ণ হয়ে ওঠার কথা ছিল। কিন্তু তারা ১০ কোটি ডলারের কোম্পানিতেও দাঁড়ায়নি। তাদের মতে, স্টার্টআপে বিদেশী বিনিয়োগ করার ক্ষেত্রে খারাপ উদাহরণ হবে পাঠাও।

প্রতিবেদন মতে, ২০১৮ সালে গো-জেক সিঙ্গাপুরের অঙ্গ প্রতিষ্ঠান ওজেক মটরের মাধ্যমে এক কোটি ৩০ লাখ ডলার লোন হিসেবে দেয় পাঠাও-কে। পরের বছর আরও ৪০ লাখ ডলার দেয় তারা। পরে এ বিনিয়োগকে ক্ষতি হিসেবে বিবেচনা শুরু করে তারা। কার্যক্রম কমে আসায় গত বছরের এপ্রিলে কর্মীদের ৩০ হতে ৪১ শতাংশ বেতন কাটে পাঠাও। তখন কর্মীদের ঈদের বোনাসও দেয়া হয়নি তারা।

এর আগে ২০১৯ সালে তিন শতাধিক কর্মী ছাঁটাই করা হয়। কুরিয়ার দিয়ে পথচলা শুরু হলেওপরে রাইড শেয়ারিং ও ফুড সার্ভিস শুরু করেছে পাঠাও। ২০১৬ সালে বাইকগুলোতে যাত্রী বহন শুরু করে তারা। শুরুতে মোবাইল ফোনে সেবা দেওয়া হলেও পরে আসে পাঠাও অ্যাপ।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ