ঈদের ছুটিতে বাসা-বাড়ির নিরাপত্তায় করণীয়

ঈদের ছুটিতে বাসা-বাড়ির নিরাপত্তায় করণীয়
ঈদে বেড়াতে যাওয়া   © সংগৃহীত

ঈদের ছুটিতে গ্রামের বাড়িতে যাবেন ঈদ করতে। এ জন্য হয়তো যাত্রার দিনক্ষণও ঠিক হয়ে গেছে। বেশ ভালো কথা। কিন্তু যাবার আগে নিজের বাসা/বাড়ি সুরক্ষিত করে রাখার পরিকল্পনাটাও সঙ্গে রাখুন। তা না হলে হয়তো কোনো দুর্ঘটনা বা চুরি-ডাকাতির শিকার হয়ে ঈদের আনন্দটাই শেষ হতে পারে। হতে পারেন বড় আর্থিক সমস্যার সম্মুখীন। এমন কিছু বিষয় সম্পর্কে চলুন জেনে নিই—

বন্ধ করুন বৈদ্যুতিক সুইচ
তাড়াহুড়া করে ঘর থেকে বের হওয়ার সময় বৈদ্যুতিক সুইচ বন্ধ না-ও করতে পারেন। এতে অযথা বিল যেমন আসবে, তেমনি ঘটতে পারে দুর্ঘটনা। তাই বাসা ত্যাগ করার পূর্বে অবশ্যই নিশ্চিত হয়ে নিন সব সুইচ বন্ধ করেছেন কিনা। সবচেয়ে ভালো হয় যদি বাসার বৈদ্যুতিক মেইন সুইচ বন্ধ করে রাখেন। এছাড়া, কয়েকদিন যেহেতু থাকা হচ্ছে না তাই এসময় ফ্রিজের বিদ্যুৎ সংযোগও বিচ্ছিন্ন রাখা উচিত। হঠাৎ বিদ্যুতের ভোল্টেজ ওঠানামা করায় ফ্রিজের ক্ষতি হতে পারে। ফ্রিজ খালি করে বৈদ্যুতিক সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে রাখুন।

চুলা বন্ধ করুন
অবশ্যই মনে করে গ্যাসের চুলা বন্ধ করে বাসা থেকে বের হোন। চুলার পেছনের চাবিও বন্ধ করে রাখুন। বাড়ি থেকে ফিরে চুলা জ্বালানোর আগে অবশ্যই জানালা খুলে নেবেন। নয়তো বদ্ধ ঘরে গ্যাস জমে আগুন ধরতে পারে।

তালা লাগান সঠিকভাবে
ঈদের সময় বেড়ে যায় চুরি বা ডাকাতির ঘটনা। তাই বাড়িতে যাওয়ার সময় বাসার নিরাপত্তা নিশ্চিত করুন। দরজায় একাধিক ভালো মানের তালা লাগান। ভেতরের প্রতিটি ঘরে আলাদা করে তালা লাগান। এতে ঘর বেশি সুরক্ষিত থাকবে।

ঘর গুছিয়ে রাখুন
বাড়িতে যাওয়ার আগে ঘর গুছিয়ে রাখুন। ঘরের অগোছালো পরিবেশ জীবাণুর জন্ম দেয়। এ ছাড়া, ঘর গুছিয়ে রাখলে দীর্ঘদিন পর ঘরে ফিরে অস্বস্তিকর পরিবেশে পড়তে হবে না। ঘরের ভেতর, বাহির, বারান্দা সব সুন্দরভাবে গুছিয়ে রাখতে চেষ্টা করুন।

আরও পড়ুন: প্রতিটি ইউনিয়নে বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল স্থাপনে ডিসিদের নির্দেশ

পোশাকের যত্ন নিশ্চিত করুন
ছুটিতে থেকে ফেরার পরই কর্মস্থলে যেতে হতে পারে আপনাকে। পরের ধকল কমাতে তাই আগেই পোশাক ধুয়ে আয়রন করে আলমারিতে রাখুন। ঘরে পরার পোশাকও এলোমেলো করে না রেখে ভাঁজ করে রাখুন নির্দিষ্ট স্থানে। আলমারির তাকে রাখুন ন্যাপথলিন কিংবা পাতলা কাপড়ে মোড়ানো ঝুরঝুরে নিমপাতা। ছত্রাক বা পোকামাকড়ের আক্রমণ থেকে সুরক্ষিত থাকতে পোশাক।

*আপনার বাসা/বাড়িতে ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরা ব্যবহার করুন।
*বাসা/বাড়ির নিচতলায় বসবাসকারীরা ভেন্টিলেশনের জানালা বন্ধ নিশ্চিত করুন।
*রাতে আপনার বাসার চারপাশ আলোকিত করে রাখার ব্যবস্থা নিন।
*আপনার বাসা বা ফ্ল্যাটে সিসিটিভি স্থাপন করুন। সিসিটিভিসহ অন্যান্য নিরাপত্তা ব্যবস্থা সক্রিয় থাকার বিষয়টি নিয়মিত নিশ্চিত করুন।
*মূল্যবান সামগ্রী ও দলিল নিরাপদ হেফাজতে রাখুন এবং তালাবদ্ধ করুন। প্রয়োজনে ব্যাংক লকারের সহায়তা নিতে পারেন।
*বাসা/বাড়ি ত্যাগের আগে যেসব প্রতিবেশী/পাশের ফ্ল্যাটের অধিবাসী ঢাকায় অবস্থান করবেন তাদের আপনার বাসার প্রতি লক্ষ্য রাখতে অনুরোধ করুন এবং ফোনে তাদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখুন।
*আপনার অনুমতি না নিয়ে কেউ যেন বাসায় প্রবেশ করতে না পারে এ বিষয়ে বাড়ির নিরাপত্তাকর্মীকে সতর্ক করুন। নিরাপত্তাকর্মী না থাকলে আগন্তুকের পরিচয় নিশ্চিত না হয়ে দরজা খুলবেন না।
*ভাড়াটিয়ারা আগেই বাসার মালিককে ঈদ উপলক্ষে বাসা ত্যাগের বিষয়টি অবহিত করুন।
*মহল্লা ও বাড়ির সামনে সন্দেহজনক কাউকে/দুস্কৃতিকারীকে ঘোরাফেরা করতে দেখলে স্থানীয় পুলিশ ফাঁড়ি ও থানাকে অবহিত করুন।
*ঈদে আপনার মহল্লা/বাসায় কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটে থাকলে বা ঘটার সম্ভাবনা থাকলে তা স্থানীয় কমিউনিটি পুলিশ/থানা/ফাঁড়িকে অবহিত করুন।
*বাসায় কোনো ভিক্ষুক কিংবা অনাথদের ইফতার করাতে হলে তাদের গতিবিধি পর্যবেক্ষণে রাখুন।
*বাসার গাড়ির গ্যারেজ সুরক্ষিত করুন।
*বাসার জানালা/দরজার পাশে কোনো গাছ থাকলে শাখা-প্রশাখা কেটে ফেলুন যাতে অপরাধীরা শাখা-প্রশাখা ব্যবহার করে বাসায় প্রবেশ করতে না পারে।

ঈদের সময় বাড়িতে যাওয়ার আগে ছোটখাটো এই বিষয়গুলো খেয়ালে রাখুন। এতে বিপদের আশঙ্কা কমবে এবং ছুটি কাটাতে পারবেন নিরাপদ ও নির্বিঘ্নে।


x