কীভাবে নেবে ৭ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের গুচ্ছ ভর্তি প্রস্তুতি

কীভাবে নেবে ৭ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের গুচ্ছ ভর্তি প্রস্তুতি
  © লোগো

আগামী ২৯ মে অনুষ্ঠিত হবে ৭ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতক প্রথমবর্ষের ভর্তি পরীক্ষা। গত বছর প্রথমবারের মত এসব বিশ্ববিদ্যালয়ে গুচ্ছ পদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছিল। এ বছরও বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, শেরে বাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান কৃষি বিশ্ববিদ্যায়, সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ও এনিম্যাল সাইন্সেস বিশ্ববিদ্যালয়, খুলনা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় ও পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়সহ মোট সাতটি কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়সমূহের ভর্তি পরীক্ষা গুচ্ছ পদ্ধতিতে গ্রহণের করা হবে।

তাই প্রথমে বিশ্ববিদ্যালয় ও আসন সংখ্যা জেনে নেয়া জরুরি —

গত বছরের ভর্তি বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী সাতটি কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে মোট তিন হাজার ৫৫৫টি আসন রয়েছে। ২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষে আসন সংখ্যা আরো বাড়ানো হতে পারে।

১) বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, ময়মনসিংহ- ১১০৮
২) বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, গাজীপুর- ৩৩০
৩) শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা- ৭০৪
৪) সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, সিলেট- ৪৩১
৫) পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, পটুয়াখালী-৫৮৭
৬) চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ও এনিম্যাল সাইন্সেস বিশ্ববিদ্যালয়, চট্টগ্রাম- ২৪৫
৭) খুলনা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, খুলনা- ১৫০

যেসব বিষয়ে পরীক্ষা হবে
বায়োলজি, রসায়ন, পদার্থ, গণিত এবং ইংরেজি।

প্রস্তুতি কথা
ভালো প্রস্তুতির প্রধান শর্ত পাঠ্য বইয়ের প্রথম থেকে শেষ পর্যন্ত ভাল ধারণা রাখা। এর পাশাপাশি সব কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের বিগত বছরের প্রশ্ন পড়তে হবে।

বিষয়ভিত্তিক প্রস্তুতি

জীববিজ্ঞান
পাঠ্যবই অর্থাৎ হাসান স্যারের আর আজমল স্যারের বই থেকে গুরুত্বপূর্ণ জিনিসগুলো দাগিয়ে পড়ে ফেলতে হবে। যখন প্রশ্ন ব্যাংক সলভ করবে তোমরা নিজেরাই বুঝবে কি গুরুত্বপূর্ণ। দু-তিনটা প্রশ্ন থাকে যেগুলা তোমাদের বইয়ে নেই এটা সাধারণত হয়েই থাকে এর জন্য বিগত বছরের প্রশ্ন এবং সহায়ক বই পড়তে হবে। তাছাড়া কোষের গঠন, বায়োটেকনোলজি, বিভিন্ন গোত্র, জীবের পরিবেশ, বিভিন্ন বিক্রিয়া সংগঠনের স্থান, নিষেক পরবর্তী অবস্থা, বিভিন্ন পর্বের বৈশিষ্ট্য, পরিপাকের এনজাইম, রক্তকণিকা, ফুসফুসের গঠন, নেফ্রন, বিভিন্ন অস্থি, স্নায়ু, ভ্রুনীয় স্তর, মেন্ডেলের সূত্র সমুহ টপিক্সগুলো ভালো করে পড়তে হবে।

রসায়ন
হাজারী-নাগ স্যারের বই ভালভাবে পড়তে হবে। ইলেক্ট্রন বিন্যাস, শিখা পরীক্ষা, মোলারিটি, সক্রিয়তা সিরিজ, জারন বিজারণ, গ্যাসের সূত্র, ন্যানো-টেকনোলজি, প্রভাবক, বিভিন্ন প্রসাধনী, নামধারী বিক্রিয়া, উৎপাদক এগুলো ভালভাবে জানা থাকতে হবে।

পদার্থবিদ্যা
পদার্থবিদ্যায় অধিকাংশই গাণিতিক সমস্যা থাকে। প্রতিটি অধ্যায়ের গাণিতিক সমস্যার উদাহরণ ও বিগত বছরগুলোতে ভর্তি পরীক্ষায় আসা গাণিতিক সমস্যাগুলো সমাধান করতে হবে। কাজ, শক্তি ও ক্ষমতা, জ্যামিতিক আলোকবিজ্ঞান, তড়িৎ চুম্বক, আপেক্ষিক তত্ত্ব, ইলেকট্রনিকস সম্পর্কিত অধ্যায় থেকে গাণিতিক সমস্যা বেশি আসে। অল্প সময়ের মধ্যে অনেক গাণিতিক সমস্যার সমাধান করতে শর্টকাট টেকনিক আয়ত্ব করে ফেলতে হবে ।

গণিত
গণিতে ভালো করতে হলে প্রতিটি অধ্যায়ের সূত্র মুখস্থ রাখতে হবে। অনেক সময় সূত্র থেকে সরাসরি প্রশ্ন আসে। বিশেষ করে ক্যালকুলাসের ক্ষেত্রে। তাই গাণিতিক সমস্যা সমাধানের সংক্ষিপ্ত পদ্ধতি আয়ত্ত করতে হবে। বেশি গুরুত্ব দিতে হবে বাস্তব সংখ্যা, সেট, ফাংশন, অমূলদ-মূলদ সংখ্যা, বিন্যাস-সমাবেশ, ত্রিকোণমিতি ও ক্যালকুলাস ও ম্যাট্রিক -নির্ণায়ক।

ইংরেজি
ইংরেজির নির্দিষ্ট কোনো সিলেবাস নেই। বিগত বর্ষের ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্নের সমাধান করতে পার। তাছাড়া ব্যাসিক গ্রামার ভালোভাবে দেখ বিশেষ করে Parts of Speech, Article, Tense, Voice, Narration, Correction, Right form of verbs, Translation, Synonyms, Antonyms, Transformation of sentences, Joining sentence, Comprehension।

সকলের জন্য শুভকামনা রইল। আশা করি, তোমাদের পদচারণায় মুখরিত হবে প্রতিটি কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের সবুজ চত্বর।

লেখক: সিইও, ডিইউ মেনটরস


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ