২.৮২ জিপিএ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে যাওয়া জামি পেলেন দুই বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতার অফার

২.৮২ জিপিএ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে যাওয়া জামি পেলেন দুই বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতার অফার
জামি জামাল   © সংগৃহীত

সাধারণত আমাদের ধারণা থাকে যারা অনেক মেধাবী, যাদের রেজাল্ট অনেক ভালো তারাই বিদেশে পড়তে যায়। আর যদি সেটা আমেরিকার কোন বিশ্ববিদ্যালয় হয় তাহলেতো কোন কথাই নেই। এদেশে পড়তে হলে একাডেমিক রেজাল্ট অনেক ভালো হতে হবে এটাই সবাই ধরে নেয়। কিন্তু না! কম রেজাল্ট নিয়েও আমেরিকাতে ভালো বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হয়ে ভালো কিছু করার সুযোগ  আছে। সেটার অনেক প্রমাণও আছে। তাদের মধ্য একজন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্র জামি জামাল। নিজের গল্প তিনি নিজেই ফেসবুক স্ট্যাটাসে লিখেছেন-

তিনি লিখেন, আমার কাছে গল্প আছে, যারা নিজেদেরকে কম মেধাবী বা কম গুরুত্বপূর্ণ মনে করেন তাদের জন্য। ২০১৪ সালে আমি আমেরিকায় যাই উচ্চ শিক্ষার জন্য। তখন আমার জিপিএ ছিল মাত্র ২.৮২। সাধারণত বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে ভর্তির শর্ত হলো মিনিমাম জিপিএ ৩.০০ থাকা। যাই হোক এই জিপিএ নিয়ে আমেরিকার একটা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মাস্টার্স প্রোগ্রাম শেষ করে এখন হাওয়ার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে (Howard University) পিএইচডি করছি। যে বিশ্ববিদ্যালয়কে Black Americanদের Ivy League  ইউনিভার্সিটি বলা হয়। যেখান থেকে আমেরিকার বর্তমান ভাইস প্রেসিডেন্টও পড়াশুনা করেছেন।

তিনি আরও লিখেন, পিএইচডি শেষ করার আগেই দুইটি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে জব অফার আসে ফ্যাকাল্টি পজিশনের। প্রথম জব অফারটি আসে জন হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয় থেকে। যেটি সারা বিশ্বে পাবলিক হেলথের জন্য নাম্বার ওয়ান ইউনিভার্সিটি এবং ওয়ার্ল্ডের সেরা বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর তালিকায় প্রথম  ১০/১৫ টার একটা। অফার লেটার পাওয়ার পর মনে হলো একটু ঘুরে আসি বিশ্ববিদ্যালয়টি থেকে। বিষয়টা তখন কিছুটা স্বপ্নের মতো ছিল।

আরও পড়ুন: শর্ত অনুযায়ী শিক্ষক নেই বেসরকারি মেডিকেল কলেজগুলোয়

তবে স্বপ্ন ভাঙে দ্বিতীয় অফার লেটার পাওয়ার পর। দ্বিতীয় অফারটি আসে সত্যিকারের Ivy League Universities থেকে। যেটি হলো ওয়ার্ল্ডের আরেকটি সেরা ইউনিভার্সিটি Cornell University. সব কিছু ঠিক থাকলে আগামী অগাস্ট থেকে Cornell ই হবে আমার নেক্সট হোম। 

ছাত্রজীবনের কথা তুলে ধরে বলেন, আমি যখন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে সমাজ বিজ্ঞান বিভাগের ছাত্র ছিলাম। তখন ক্লাসে আমার অবস্থান ছিল (পরীক্ষার ফলাফল বিবেচনায় ) প্রায় ১৮০ থেকে ১৯০ এর কাছাকাছি। অর্থ্যাৎ অনেকটা শেষের দিক থেকে কিছুটা প্রথম ছিলাম। আমার মতো ছাত্র যদি এই পর্যায়ে আসতে পারে। তাহলে আপনি কেন নয় ? দরকার আপনার সদিচ্ছা, কার্যকর প্ল্যান এবং টিকে থাকার অদম্য ইচ্ছা শক্তি। সেইটা পড়াশুনা হউক অথবা অন্যকোনো ভালো উদ্দেশে হউক। 

আজ এই পর্যন্তই। সময় পেলো লিখবো পুরো গল্প, গল্পের পিছনের গল্প। ভালো থাকবেন। আমার জন্য দোয়া করবেন।


x