স্কুল অফ আইটি

১ টাকায় শিক্ষার্থীদের কম্পিউটার প্রশিক্ষণ

তারুণ্য
কম্পিউটার প্রশিক্ষণ নিতে আসা ক্ষুদে শিক্ষার্থীরা  © টিডিসি ফটো

গ্রামে আঁকা-বাঁকা মেঠো পথ পাড়ি দিয়ে চৌরাস্তায় একটা আধপাকা টিনের ঘর। তাতে বেশ কয়েকজন শিশু ল্যাপটপের সামনে বসে, কি-বোর্ডে ঠক ঠক শব্দ করে লিখে চলেছে। মনিটরে তা ভেসে উঠছে। পেছনে দাঁড়িয়ে ত্রিশ-পঁয়ত্রিশ বছর বয়সী এক যুবক ওদের নির্দেশনা দিয়ে যাচ্ছে। হাতে কলমে ভুলগুলো শুধরে দিচ্ছে এভাবে নয় এভাবেই।

শহরের অলিগলিতে কম্পিউটার ট্রেনিং সেন্টারের এমন চিত্র সচারচর দেখা গেলেও গ্রামে এমন চিত্র একদমই বিরল। আর এই বিরল কাজটিই করে দেখিয়েছেন রাজবাড়ীর সদর উপজেলার খানগঞ্জ ইউনিয়নের অসিত অপু। নিজ গ্রাম বেলগাছিতে প্রতিষ্ঠা করেছেন কম্পিউটার শিক্ষার ভিন্নধর্মী স্কুল ‘‘দাস স্কুল অফ আইটি’’। প্রতিমাসে মাত্র এক টাকা প্রতীকী বেতনে ষষ্ঠ শ্রেণি থেকেই কম্পিউটারের প্রাথমিক শিক্ষা দেওয়া হয় এখানে।

গ্রামে কম্পিউটার শিক্ষাকে ছড়িয়ে দিতে ২০১৫ সালের ১৬ই ডিসেম্বর ভিন্নধর্মী কম্পিউটার শিক্ষার এই স্কুলটি চালু করেন অসিত অপু। এর পর থেকে একরকম বিনামূল্যেই কম্পিউটার প্রশিক্ষণ দিয়ে চলেছেন তিনি।

অসিত অপু এশিয়ান ইউনিভার্সিটি অফ বাংলাদেশ থেকে এমবিএ করেছেন। এরপরে চিরাচরিত চাকরির পেছনে না ছুটে গ্রামে এসে স্কুলটি চালু করেন। পাশাপাশি নাটকের স্ক্রিপ্টরাইটার হিসেবেও কাজ করছেন তিনি।

চাকরিতে না গিয়ে গ্রামে এমন স্কুল চালু করার কারণ জিজ্ঞাসা করলে অসিত অপু বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় জীবন থেকেই ভিন্নধর্মী কিছু করার ইচ্ছা ছিল। গৎবাঁধা জীবনে আমি থাকতে চায়নি। মানুষের জন্য সব সময় কিছু করতে চেয়েছি।

তিনি আরও বলেন, প্রতিটি শিক্ষিত মানুষের কম্পিটারের প্রাথমিক জ্ঞান থাকা জরুরী। আমাদের দেশে মাধ্যমিক স্তরের শিক্ষা ব্যবস্থায় বর্তমানে কম্পিউটার শিক্ষা বাধ্যতামূলক করা হলেও হাতে কলমে কম্পিউটার শেখার সুযোগ সীমিত, গ্রামাঞ্চলে সেই সমস্যা আরও প্রবল। বোর্ড পরীক্ষায় বাস্তবিক পক্ষে একজন শিক্ষার্থী কম্পিউটার সম্পর্কে কতটুকু জ্ঞান রাখে তার পুরোপুরি সঠিক পরিমাপ করার মতো পদ্ধতি এখনো চালু হয়নি। ফলে, কাগজে কলমে কেউ যদি সাঁতার কাটবার পদ্ধতি সম্পর্কে শিক্ষা লাভ করে, তাকে পুকুরে নামিয়ে দিলে যা হয়, আমাদের বর্তমানে প্রচলিত শিক্ষা ব্যবস্থায় কম্পিউটার সম্পর্কে যে জ্ঞান লাভ হয়, তাতে একজন পাশ মার্ক পাওয়া শিক্ষার্থীকে যদি একটি সামান্য চিঠি ড্রাফট করতে বলা হয়, তার অবস্থাও হয় সেই কাগজে কলমে শেখা সাঁতারুর মতো। তাই তথ্য ও প্রযুক্তির এই যুগে হাতে কলমে কম্পিউটার শিক্ষার গুরুত্ব অনস্বীকার্য।

‘‘দাস স্কুল অফ আইটিতে’’ মাইক্রোসফ্ট ওয়ার্ড, মাইক্রোসফ্ট এক্সেল, মাইক্রোসফ্ট পাওয়ার পয়েন্ট, মাইক্রোসফ্ট এক্সেস, মাইক্রোসফ্ট পাবলিশারসহ ইন্টারনেট ব্রাউজিং শেখানো হয় ।


মন্তব্য