বাংলার মানুষের ভাগ্য পরিবর্তনে কাজ করে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রীর জন্মদনি
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি  © ফাইল ফটো

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অসমাপ্ত কাজকে সমাপ্ত করার দৃঢ় প্রত্যয় নিয়ে স্বমহিমায় আবির্ভূত হয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি তার দূরদর্শী নেতৃত্বের মাধ্যমে বাংলার মানুষের ভাগ্য পরিবর্তনে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন।

আজ সোমবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৪তম জন্মদিন উপলক্ষে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের শেখ হাসিনা হল আয়োজিত ভার্চুয়াল আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একজন সংগ্রামী মানুষ। তাঁর পুরোটা জীবনই সংগ্রামের। বহু ত্যাগ তিতিক্ষার মাধ্যমে তিনি আজকের এ পর্যায়ে এসেছেন। শৈশব থেকে কৈশর, কৈশর থেকে পারিবারিক জীবনের প্রতিটি পদে পদে সংগ্রাম করে দুঃখ-বেদনাকে সাথে নিয়ে তাঁর জীবনের পথ পাড়ি দিচ্ছেন।

প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে দেশের অবস্থান তুলে ধরে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, তাঁর বলিষ্ঠ ও সাহসী নেতৃত্বের মাধ্যমে বাংলাদেশ বিশ্বে উন্নয়নের রোল মডেল। তিনি আমাদের বাঙালী জাতির বাতিঘর ও কান্ডারি।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. মাহবুব হোসেন। সভায় সভাপতিত্ব করবেন বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. ছাদেকুল আরেফিন।

উপাচার্য অধ্যাপক ছাদেকুল আরেফিন বলেন, জীবনের শুরু থেকে বিভিন্ন প্রতিকুল পরিবেশে অতিক্রম করে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বেড়ে উঠেছেন। তিনি ১৯৭৫ এর ১৫ আগস্ট পরবর্তী বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের দুঃসময়ে দলের কান্ডারি হিসেবে হাল ধরেছেন। পরে ১৯৯৬ সালে তিনি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগকে পুনরায় ক্ষমতায় নিয়ে আসেন।

উপাচার্য বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাঙালি জাতিকে সোনার বাংলা গড়ার যে স্বপ্ন দেখিয়েছিলেন তা বাস্তবায়নে কাজ করে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। দেশে বিচারহীনতার যে সংস্কৃতি গড়ে উঠেছিল তা তিনি দুর করেছেন। প্রধানমন্ত্রী দেশকে অর্থনৈতিকভাবে স্বাবলম্বী করে সারা বিশ্বের কাছে বাঙালি জাতিকে একটি সম্মানজনক স্থানে পৌঁছে দিয়েছেন।

বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের শেখ হাসিনা হল আয়োজিত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৪তম জন্মদিন উপলক্ষে ভার্চুয়াল আলোচনা সভায় বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন অনুষদের ডিন, বিভিন্ন বিভাগের চেয়ারম্যান, শিক্ষকমন্ডলী, দপ্তর প্রধানগন, শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা-কর্মচারীরা যুক্ত ছিলেন।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ