কাদেরের ‘মাসুদ’ আর হাইকোর্টের ‘মাসুদ’ এক নয়

ওবায়দুল কাদের সঙ্গে বিআরটিএর মাসুদ ও বাইক সঙ্গে নিয়ে হাইকোর্টের মাসুদ
ওবায়দুল কাদের সঙ্গে বিআরটিএর মাসুদ ও বাইক সঙ্গে নিয়ে হাইকোর্টের মাসুদ  © ফাইল ছবি

ভাড়ায় বাইক চালানোর ছবি ফেসবুকে পোস্ট করা নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী অ্যাডভোকেট মো. মাসুদ রানাকে ভালো হয়ে যেতে বলেছে হাইকোর্ট। এ সংবাদটি দ্যা ডেইলি ক্যাম্পাসে ‘মাসুদকে ভালো হয়ে যেতে বলেছে হাইকোর্ট’ শিরোনামে প্রকাশিত হয়েছে। এ খবরে অনেক পাঠক হাইকোর্টের মাসুদের সঙ্গে বিআরটিএর মাসুদকে গুলিয়ে ফেলেছে।

মাসুদকে ভালো হয়ে যেতে বলার খবরে দারুল উলুম হাটহাজারী মাদ্রাসার শিক্ষার্থী মোহাম্মদ খাইরুল বাসার কাউসার লিখেছেন, ‘‘অবশেষে স্যার ওবায়দুল কাদেরের উপদেশ কাজে লাগল।’’

মূলত সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এখন কোড ল্যাঙ্গুয়েজ ‘মাসুদ, তুমি কি ভাল হবা না?’ সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বিআরটিএর উপপরিচালক মাসুদ আলমকে তার বিভিন্ন বিতর্কিত কাজের জন্য এ কথা বলে ভৎসনা করেছেন। এ সংক্রান্ত একটি ছোট্ট ভিডিও ফেসবুকে আগে থেকেই ভাইরাল হয়েছে। ভিডিওতে ওবায়দুল কাদের মাসুদকে ভালো হয়ে যেতে বলতে দেখা যায়। সম্প্রতি হাইকোর্টের মাসুদও এ তালিকায় যোগ হয়েছে।

মনির হোসাইন নামে একজনের বিআরটিএর মাসুদকে উদ্দেশ্য করে ওবায়দুল কাদের বলা কথাগুলো উদ্ধৃতি করে লিখেছেন, ‘‘মাসুদ! তুমি ভালো হয়ে যাও। আমি তোমাকে অনেক সময় দিয়েছি। ভালো হয়ে যাও মাসুদ।’’

রাজধানীর মুহাম্মদপুরের কাজী সালিমা হক মহিলা ডিগ্রী কলেজের শিক্ষার্থী মহিনী মরিয়ম শ্রাবনী লিখেছেন, ‘‘মাসুদ ভালো হওয়ার মতো পাবলিক নাহ ভাই’’।

হাইকোর্টের মাসুদ

ভাড়ায় বাইক চালানোর ছবি পোস্ট করার পর থেকে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী অ্যাডভোকেট মো. মাসুদ রানাকে নিয়ে আইনাঙ্গনে পক্ষে-বিপক্ষে আলোচনা-সমালোচনা চলছিল। এর মধ্যেই হাইকোর্ট তাকে সতর্ক করেছে। কোর্টের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, ‘এসব করে আদালতের ভাবমূর্তি নষ্ট করবেন না। ভালো হয়ে যান মিস্টার মাসুদ রানা।’

গত ১৬ জুলাই বাইক রাইডিংয়ের একটি ছবি শেয়ার করে এডভোকেট মাসুদ রানা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে আবেগঘন একটি পোস্ট দেন।

স্ট্যাটাসে তিনি লিখেন, মাননীয় প্রধান বিচারপতি, আপনার কোর্ট অফিসার এখন বাইক রাইডার’ এ শিরোনামে দেওয়া পোস্টে তিনি লিখেন, আইনপেশা লকডাউনে সম্পূর্ণ বন্ধ। লকডাউন ব্যতীত সময়ে সীমিত পরিসরে ভার্চুয়াল কোর্ট ছিল। কিন্তু এখন লকডাউন স্থগিত হলেও কোর্ট বন্ধ। সব পেশার মানুষ কাজ করতে পারছেন, শুধু আইনজীবীরাই কর্মহীন...।

ওবায়দুল কাদেরের মাসুদ

ওবায়দুল কাদেরের ভৎসনার সুবাধে ফেসবুকে ভাইরাল হওয়া ‘মাসুদ‘ বিআরটিএর উপপরিচালক মাসুদ আলম। তিনি বিআরটিএর মিরপুর অফিসে থেকে সংস্থাটির প্রধান কার্যালয়ে বদলি হয়েছেন। ওবায়দুল কাদেরের দেয়া বক্তব্যটি মাসুদের সাবেক কর্মস্থল মিরপুরে ছিল।

২০১৭ সালের জানুয়ারিতে বিআরটিএর মিরপুর কার্যালয় পরিদর্শনে গিয়ে ওবায়দুল কাদের তার সঙ্গে থাকা প্রতিষ্ঠানটির উপ-পরিচালক মাসুদ আলম প্রসঙ্গে বলেছিলেন, ‘ভালো হয়ে যাও মাসুদ, ভালো হয়ে যাও। তোমাকে আমি অনেক সময় দিয়েছি। তুমি ভালো হয়ে যাও। তুমি কি এখানে আবার পুরানো খেলা শুরু করেছ? তুমি কি কোনও দিনও ভালো হবে না?’


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ