যে ক্যাফেতে কফির সঙ্গে মিলবে পাখির সঙ্গও

পাখি ক্যাফে
ক্যাফেতে পাখির সঙ্গ  © সংগৃহীত

পাখির রাজ্য বসে কফি খাওয়ার অনুভূতিটা কেমন হতে পারে? এমন যদি হতো আপনি কফি খাচ্ছেন আর আপনার চারপাশে উড়ছে হরেক রঙ্গের পাখি। আপনার হাত এসে বসলো, আলতো করে ঠোকর দিলো। ভাবছেন এটা কেবল কল্পনাতেই সম্ভব! কিন্তু না বাস্তবেও তা সম্ভব। মাত্র ১০ ডলার খরচ করলে এভাবে সময় কাটাতে পারবেন শতাধিক পাখির সাথে ‘হ্যাপি বার্ডস ডে’ ক্যাফেতে।

থাইল্যান্ডের রাজধানী ব্যাংককে পাখিপ্রেমীদের জন্য গড়ে উঠেছে এমন এক ক্যাফে। চাইলেই ইচ্ছেমতো সময় কাটানো যাবে পাখির সাথে। এসব পাখি চিড়িখানার মত খাঁচায় বন্দি থাকেনা। ক্যাফেতে নানান রঙ্গের বাহারি পাখি আপনার নাগালের মধ্যই উড়াউড়ি করছে। পাখিগুলো দেখা যাবে একেবারে কাছ থেকে। চাইলে পাখিগুলো ধরা যাবে, ছোঁয়াও যাবে। খেলতে পারবেন পাখিদের সাথে। চারপাশে নানা জাতের পাখি; মনে হবে যেন কোনো পাখির রাজ্য প্রবেশ করেছেন। পাখিনা কেবল ক্যাফের বাগানে রয়েছে হাঁস-মুরগিও। এমনই এক ব্যতিক্রমী ক্যাফে বানানো হয়েছে থাইল্যান্ডে।

আরও পড়ুন- মেধাতালিকা প্রকাশের সময় নিয়ে যা জানা গেল 

১০ ডলারের বিনিময়ে যতক্ষন ইচ্ছা সময় কাটাতে পারবেন পাখিদের সাথে। পাখিগুলোর বন্ধুসুলভ আচরণ মুগ্ধ করেছে দর্শনার্থীদের । দিন যত যাচ্ছে বাড়তে শুরু করেছে মানুষের আনাগোনা।

দর্শনার্থীরা বলছেন, আমি প্রথমে কিছুটা ভয় পেয়েছিলাম। কারণ আমার ধারণা ছিল, পাখিদের ধারালো ঠোঁট ও নখ রয়েছে। কিন্তু এখানকার পাখিগুলোকে আমার কাছে বন্ধুসুলভ মনে হয়েছে। এই পাখিগুলো আমার হাতে কোনো খাবার না থাকলেও কাছে আসছে যা সাধারণত অন্য পাখির ক্ষেত্রে দেখা যায় না।

আরও পড়ুন- অনলাইনে ক্লাস শুরু বুয়েটে, খোলা থাকছে হল

ক্যাফে মালিক থানাক্রেত সুনত্রোনকাল্লাপাকিত বলেন, তাদের দীর্ঘ তিন বছরের পরিশ্রমের ফসল এ ক্যাফে। তারা এর নাম দিয়েছেন ‘হ্যাপি বার্ডস ডে’। এই ক্যাফেতে প্রায় ১১০ প্রজাতির পাখি রয়েছে। তাদের বাগানে হাঁস-মুরগিও রয়েছে। এখানে পাখিদের সাথে ঘনিষ্ঠ সময় কাটানোর সুযোগ রয়েছে যে সুযোগ চিড়িয়াখানা কিংবা পাখির খামারে নেই।


মন্তব্য

x