এপ্রিল থেকে জুনের মধ্যে বাজারে আসছে ভারতীয় টিকা

আগামী বছর বাজারে আসছে ভারতীয় টিকা
আগামী বছরের এপ্রিল থেকে জুনের মধ্যে বাজারে আসছে ভারতীয় টিকা  © আনন্দবাজার

দেশীয় প্রযুক্তিতে ভারতে বানানো প্রথম কোভিড টিকা ‘কোভ্যাক্সিন’ অন্তত ৬০ শতাংশ কার্যকরী হবে। আগামী বছর এপ্রিল থেকে জুনের মধ্যেই বাজারে এসে যাবে এই টিকা। দেশটির টিকা প্রস্তুতকারক সংস্থা ‘ভারত বায়োটেক’-এর কোয়ালিটি অপারেশন্সের প্রেসিডেন্ট সাই ডি প্রসাদ এ কথা জানিয়েছেন।

‘ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অব মেডিক্যাল রিসার্চ (আইসিএমআর)’-এর সঙ্গে যৌথ উদ্যোগে সম্পূর্ণ দেশীয় কোভিড টিকা বানাচ্ছে হায়দরাবাদের সংস্থা ভারত বায়োটেক। টিকা বানানো হয়েছে পুণের ‘ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব ভাইরোলজি (এনআইভি)’ থেকে সার্স কভ-২ ভাইরাসের স্ট্রেন নিয়ে। ভারতে কোভ্যাস্কিন-এর এখন তৃতীয় পর্যায়ের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল চলছে। এ মাসেই শুরু হয়েছে সেই ট্রায়াল।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে প্রসাদ জানিয়েছেন, আইসিএমআর-এর সহযোগিতায় দেশের বিভিন্ন প্রান্তের ২৫টি কেন্দ্রে তৃতীয় পর্যায়ের ট্রায়ালে টিকা দেওয়া হয়েছে ২৬ হাজার স্বেচ্ছাসেবককে। ২৮ দিনের ব্যবধানে তাঁদের ফের টিকা দেওয়া হবে। দেশীয় প্রযুক্তিতে বানানো কোভিড টিকাগুলির মধ্যে এটাই বৃহত্তম ট্রায়াল। টিকা কতটা নিরাপদ, তা জানা যাবে আগামী দু’-তিন মাসের মধ্যেই। তৃতীয় পর্যায়ের ট্রায়ালের ফলাফল প্রকাশিত হলে।

প্রসাদ বলেছেন, ‘শ্বসনতন্ত্রের নিরাপত্তায় কোনও টিকা ৫০ শতাংশ কার্যকরী হলেই তাকে অনুমোদন দেয় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএচও)। যুক্তরাষ্ট্রের ‘ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (এফডিএ)’ এবং ভারতের ‘সেন্ট্রাল ড্রাগস স্ট্যান্ডার্ড কন্ট্রোল অর্গানাইজেশন (সিডিএসসিও)’-ও সংশ্লিষ্ট টিকার অনুমোদনের ক্ষেত্রে একই নিয়ম মেনে চলে। প্রথম দু’টি পর্যায়ের ট্রায়ালের ফলাফলের ভিত্তিতে আমাদের আশা, কোভ্যাক্সিন তার চেয়েও বেশি কার্যকরী হবে। অন্তত ৬০ শতাংশ। তার বেশিও হতে পারে।’

ভারত বায়োটেক-এর কর্মকর্তা জানিয়েছেন, কোভ্যাক্সিন কতটা কার্যকরী ও নিরাপদ, তা নিয়ে আগামী দু’-তিন মাসের মধ্যে তৃতীয় পর্যায়ের ট্রায়ালের ফলাফল জানানো হবে সিডিএসসিও-কে। তখনই টিকা বাজারে আনার অনুমতি চাওয়া হবে। তিনি বলেন, ‘সেই অনুমতি মিললে আমরা আশা করছি, আগামী বছর এপ্রিল থেকে জুনের মধ্যেই কোভ্যাক্সিন ভারতের বাজারে এসে যাবে’।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ