বাঁশবাগানে মাদ্রাসাছাত্রীকে গণধর্ষণ, অচেতন অবস্থায় উদ্ধার

ধর্ষণ
মাদ্রাসাছাত্রী গণধর্ষণ  © ফাইল ছবি

মাদারীপুরে ষষ্ঠ শ্রেণির এক মাদ্রাসাছাত্রীকে অপহরণের পর গণধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। অচেতন অবস্থায় ওই শিক্ষার্থীকে ভর্তি করা হয়েছে জেলা সদর হাসপাতালে। নির্যাতিতার পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযুক্তদের নামে সদর মডেল থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

স্বজনরা জানায়, শনিবার (১৭ এপ্রিল) সন্ধ্যায় বাড়ির উঠানে বের হয় মাদারীপুর সদরের কালিকাপুরের ষষ্ঠ শ্রেণির ওই মাদ্রাসাছাত্রী। ওত পেতে থাকা একই গ্রামের জাকির মোড়ল, বাদল মাতুব্বরসহ ৪ জন মুখ চেপে ধরে ওই শিক্ষার্থীকে পাশের একটি বাঁশবাগানে নিয়ে যায়। পরে সেখানে নিয়ে জাকিরসহ তার সহযোগীরা ওই শিক্ষার্থীকে গণধর্ষণ করে বলে অভিযোগ নির্যাতিতার। পরে পরিবারের লোকজন খোঁজাখুঁজির একপর্যায়ে ঘটনার ৪ ঘণ্টা পর অচেতন অবস্থায় বাগান থেকে ওই শিক্ষার্থীকে উদ্ধার করে ভর্তি করে জেলা সদর হাসপাতালে। 

এ ঘটনার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেছেন স্বজন ও এলাকাবাসী। প্রাথমিক পর্যায়ে গুরুতর হলেও বর্তমানে মাদ্রাসাছাত্রীর শারীরিক অবস্থার উন্নতি হয়েছে উল্লেখ করে এখনো চিকিৎসা চলছে বলে জানায় কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. রিয়াদ মাহমুদ। এদিকে ধর্ষণের ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের কথা জানিয়েছেন মাদারীপুর জেলা পুলিশ সুপার গোলাম মোস্তফা রাসেল।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ