ফ্রান্সে ‘আল্লাহু আকবর’ বলে শিক্ষককে জবাই, ৯ জন গ্রেপ্তার

ফ্রান্সে ‘আল্লাহু আকবর’ বলে শিক্ষককে জবাই, ৯ জন গ্রেপ্তার
ঘটনাস্থলে মোতায়েন পুলিশ  © সংগৃহীত

ক্লাসে ধর্মনিরপেক্ষতার পাঠ দেওযার সময়ে মহানবী হযরত মোহাম্মদ (স.)-এর কার্টুন চিত্র তুলে ধরেছিলেন ছাত্রদের সামনে। এই অপরাধে ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসের রাস্তায় এক কলেজ শিক্ষককে জবাই করেছে জঙ্গিবাদ সমর্থক এক তরুণ৷ পরে পুলিশের গুলিতে নিহত হয় সেই তরুণ ৷ ঘটনার সাথে জড়িত সন্দেহে  ৯ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ৷

এ ঘটনার তদন্তকারীরা জানার চেষ্টা করছেন, হামলাকারী একাই ছিলো, নাকি এর পেছনে আরও অনেকে জড়িত৷ সে কারণেই এই ৯ য়জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য৷ চেচনিয়া বংশোদ্ভূত ওই হামলাকারীর বয়স মাত্র ১৮৷

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, আততায়ী ‘আল্লাহু আকবর’ বলে হামলা চালান৷ হত্যাকাণ্ডের শিকার ব্যক্তি কলেজের ইতিহাসের শিক্ষক৷ এই মাসের প্রথমদিনে তিনি তার মত প্রকাশের স্বাধীনতা বিষয়ক ক্লাসে মহানবী হযরত মোহাম্মদ (স.)-এর কার্টুন দেখিয়েছিলেন শিক্ষার্থীদের৷

ফরাসি প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল মাক্রোঁ এই ঘটনাকে ‘ইসলামি সন্ত্রাসবাদ’ হিসেবে উল্লেখ করেছেন৷

ঘটনার পরপরই হামলাকারীর চার আত্মীয়কে আটক করেছে পুলিশ, এর মধ্যে এক শিশুও আছে৷ এরপর রাতভর অভিযান চালিয়ে আরও পাঁচজনকে আটক করে পুলিশ৷ এদের মধ্যে দ্যু বয়েস ডি অলনে কলেজের দুই শিক্ষার্থীর অভিভাবক রয়েছেন৷

ফ্রান্সের মুসলিম নেতারা এই ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়ে বলেছেন, ফ্রান্সের ধর্মনিরপেক্ষ নীতি, মত প্রকাশের স্বাধীনতায় আঘাত হেনেছে এটি৷

বোর্দো মসজিদের ইমাম তারেক ওব্রু সংবাদ সংস্থা রয়টার্সকে বলেছেন, একজন নিরপরাধ মানুষকে হত্যা করা কোন সভ্য মানুষ করতে পারে না, এটি বর্বরদের কাজ৷  ইসলামী জঙ্গিরা এবং তাদের মতাদর্শকে যারা মেনে চলে, সেই সব মানুষ ফ্রান্সের মুসলিম সম্প্রদায়ের ভাবমূর্তিকে ধ্বংস করছে বলে মন্তব্য করেন তিনি৷

তারেক আরও বলেন, যেসব দিনে হামলা হয় না, আমরা আল্লাহকে ধন্যবাদ জানাই৷ এই ধরনের ঘটনা সমাজ, শান্তি এবং ধর্ম, যা আমাদের একত্রিত করে, তার উপর হামলা৷

সূত্র: ডয়েচে ভেলে বাংলা


মন্তব্য

এ বিভাগের আরো সংবাদ