শিক্ষার্থীদের টিকা নিশ্চিত না করে খুলবে না ঢাবি

ক্যাম্পাস
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়  © ফাইল ফটো

শিক্ষার্থীদের করোনা ভাইরাসের টিকা নিশ্চিত না করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় খোলা হবে না বলে জানা গেছে। প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা অনুযায়ী সবার টিকা নিশ্চিত করেই ক্যাম্পাস খুলতে চায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। ফলে আগামী ২৪ মের আগে ছাত্রছাত্রীদের টিকা দিতে না পারলে ওইদিন ঢাবি ক্যাম্পাস খুলছে না।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার (২৯ এপ্রিল) ঢাবির প্রভোস্ট কমিটির জরুরি সভায় টিকা নিশ্চিত না করে হল খোলা হবে না মর্মে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। সেই সিদ্ধান্তের সাথে এখন ক্যাম্পাস খোলার বিষয়টিও যুক্ত করা হয়েছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, বর্তমান পরিস্থিতি বিবেচনায় এখনই সব শিক্ষার্থীকে একসঙ্গে ক্যাম্পাসে নিয়ে আসতে চায় না বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। ছাত্রছাত্রীদের ক্যাম্পাসে নিয়ে আসার আগে অন্তত করোনা টিকার প্রথম ডোজ দেয়া নিশ্চিত করতে চায় কর্তৃপক্ষ। এর পর তাদের ক্যাম্পাসে নিয়ে আসতে চায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে ঢাবি উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ সামাদ দ্যা ডেইলি ক্যাম্পাসকে বলেন, আমাদের প্রভোস্ট স্ট্যান্ডিং কমিটির বৈঠকে শিক্ষার্থীদের টিকা নিশ্চিত না করে হল না খোলার সিদ্ধান্ত হয়েছে। আমরা টিকা নিশ্চিত করেই শিক্ষার্থীদের ক্যাম্পাসে নিয়ে আসতে চাই।

এদিকে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ঘোষণা অনুযায়ী অগ্রধিকার ভিত্তিতে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের টিকা দেয়ার কথা বলা হলেও নানা জটিলতায় সব শিক্ষার্থীকে টিকা দেয়া সম্ভব হয়নি। এরমধ্যে অন্যতম কারণ হচ্ছে ছাত্রছাত্রীদের জাতীয় পরিচয় পত্র না থাকা। তবে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করা হচ্ছে বলে জানা গেছে।

সূত্র জানায়, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে সব মিলিয়ে প্রায় ৩০ হাজার শিক্ষার্থী রয়েছে। এদের মধ্যে টিকার জন্য অল্পকিছু শিক্ষার্থী রেজিষ্ট্রেশন করতে পেরেছেন। তবে বেশিরভাগ ক্ষেত্রে এনআইডি না থাকায় রেজিষ্ট্রেশনই করতে পারেনি শিক্ষার্থীরা। বিষয়টি সমাধানের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) ও মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে আলোচনা করার চিন্তাভাবনা করছে ঢাবি।

এ প্রসঙ্গে অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ সামাদ দ্যা ডেইলি ক্যাম্পাসকে বলেন, আমাদের অনেক শিক্ষার্থীর ভোটার আইডি না থাকায় টিকা দেয়া নিয়ে অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে। এজন্য আমরা আমাদের বৈধ্য শিক্ষার্থীদের একটি তালিকা করার চিন্তাভাবনা করছি। সেই তালিকা আমরা ইউজিসি এবং মন্ত্রণালয়ের কাছে পাঠাবো। তারা যেন সেই তালিকা ধরেই আমাদের শিক্ষার্থীদের ভ্যাকসিন দেয় সেই ব্যবস্থা করার প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে।

শিক্ষার্থীদের বিশ্ববিদ্যালয় প্রদত্ত আইডি কার্ড দিয়ে রেজিষ্ট্রেশন সম্পন্ন করার উদ্যোগ নেয়া যায় কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি আরও বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের আইডি কার্ড দিয়ে রেজিষ্ট্রেশন সম্পন্ন করা যাবে না। কেননা অনেকেই তখন আইডি কার্ড বানিয়ে নেবে। এটি সম্ভব হবে না।

এদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের একটি অংশ সব শিক্ষার্থীকে একসঙ্গে ক্যাম্পাসে নিয়ে না আসার পক্ষে মত দিয়েছেন। তারা বলছেন, একসঙ্গে সবাইকে ক্যাম্পাসে নিয়ে অসলে সবকিছু নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাবে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা কষ্টসাধ্য হয়ে উঠবে। তাই ধাপে ধাপে ছাত্রছাত্রীদের ক্যাম্পাসে নিয়ে আসতে হবে।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান দ্যা ডেইলি ক্যাম্পাসকে বলেন, আমাদের ছাত্রছাত্রীদের কীভাবে ক্যাম্পাসে নিয়ে আসা যায়, কাদের ক্লাস আগে করানো দরকার, পরীক্ষা নেয়া দরকার এসব বিষয়গুলো আমরা বিবেচনা করছি। সংশ্লিষ্ট বিভাগের ডিনদের সাথে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

ঢাবি উপাচার্য আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, শিক্ষার্থীদের টিকা নিশ্চিত না করে হল-ক্যাম্পাস খোলা যাবে। আমরা উনার সাথে একমত। আমরও টিকা নিশ্চিত না করে কার্যক্রম শুরু করতে চাই না। টিকা দেয়া শেষ হলে আমরা ধাপে ধাপে সবকিছু খুলে দিতে চাই।


মন্তব্য

এ বিভাগের আরো সংবাদ