বাথরুমের সামনে বমির ওপর পড়েছিল শামসুর রেহমানের মরদেহ

অধ্যাপক ড. তারেক শামসুর রেহমান
অধ্যাপক ড. তারেক শামসুর রেহমান  © সংগৃহীত

বরেণ্য লেখক ও জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের অধ্যাপক ড. তারেক শামসুর রেহমান মারা গেছেন। শনিবার দুপুরে রাজধানীর উত্তরা অ্যাপার্টমেন্ট প্রজেক্টে নিজের ফ্ল্যাট থেকে তার মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এসময় তিনি বাসায় একা ছিলেন। পুলিশ দরজা ভেঙে তাকে মৃত অবস্থায় পেয়েছেন।

পুলিশের জানায়, বাথরুমের দরজার সামনে বমির ওপর পড়েছিল শামসুর রেহমানের মরদেহ। এ সময় তার পা ছিল বাথরুমের ভেতর। বাকি শরীর ছিল দরজার সামনে। তার শরীরে ছিল সাদা রঙের স্যান্ডো গেঞ্জি ও কালো রঙের প্যান্ট। আর তার ডান পায়ে ছিল মোজা। এছাড়া মরদেহের আশপাশে অনেক রক্তও দেখতে পান প্রত্যক্ষদর্শীরা।

শামসুর রেহমানের এক প্রতিবেশী জানান, সকালে স্যারের সাড়া না পেয়ে বুয়া আমাদের খবর দেন। আমরা এসে দরজায় অনেক ধাক্কাধাক্কি করেও স্যারের সাড়া পাইনি। পরে পুলিশকে জানালে পুলিশ এসে স্যারের ফ্ল্যাটের দরজা ভেঙে ভেতরে প্রবেশ করে। তখন পুলিশের সঙ্গে আমরাও ভেতরে প্রবেশ করি। ভেতরে গিয়ে দেখতে পাই, স্যারের মরদেহ বাথরুমের দরজার সামনে বমি ও রক্তের ওপর পড়ে রয়েছে।

এর আগে এদিন শনিবার (১৭ মার্চ) দুপুরে উত্তরা-১৮ নাম্বার সেক্টরে রাজউকের আবাসিক প্রকল্পের দোলনচাপা ভবনের ১৩০৪ নম্বর ফ্ল্যাট থেকে শামসুর রেহমানের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। ডিএমপির উত্তরা বিভাগের উত্তরা জোনের সহকারী পুলিশ কমিশনার শচীন মল্লিক বলেন, আমরা প্রাথমিকভাবে ধারণা করছি, অধ্যাপক শামসুর রহমান হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। তবে আমরা সব বিষয়কে সামনে রেখেই তদন্ত করছি।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ