গেরুয়ার সব খাবারের দোকান বন্ধ করে দিয়েছে স্থানীয়রা

খাবার হোটেল
সংবাদ সম্মেলনে জাবি শিক্ষার্থীরা ও জাবি লোগো  © ফাইল ফটো

জোর পূর্বক গেরুয়া গ্রামের সব খাবারের দোকান বন্ধ করে দেয়ার অভিযোগ করেছেন ওই এলাকায় অবস্থানরত জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। রবিবার (২১ ফেব্রুয়ারি) সকালে গেরুয়া গ্রামে অবস্থানরত শিক্ষার্থীরা গণমাধ্যমের কাছে এ অভিযোগ করেছেন।

শিক্ষার্থীরা বলছেন, আমরা যেন খাবার খেতে না পারি সেজন্য ইচ্ছাকৃতভাবে এই এলাকার সব দোকান বন্ধ করে রাখা হয়েছে। এখানকার যে সকল লোকজন শিক্ষার্থীদের রুমে গিয়ে খাবার দিয়ে আসত, তাদেরকেও খাবার দিতে নিষেধ করা হয়েছে।

এ বিষয়ে স্নাতকোত্তর শিক্ষার্থী তৌফিকুল ইসলাম বলেন, এই এলাকার বর্তমান অবস্থা ভয়াবহ। আমরা চুম করে পেছন দিক দিয়ে খাবার নিয়ে আসতাম। তবে আজ থেকে সেটাও হচ্ছে না। দোকানদাররা বলছে, স্থানীয়রা জোর করে তাদের দোকান বন্ধ করে দিয়েছে। বর্তমান পরিস্থিতির কথা বিবেচনা করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের উচিত প্রকৃত ঘটনা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে তুলে ধরে সব হলগুলো খুলে দিয়ে রানিং স্টুডেন্টদের হলে ফিরিয়ে নেওয়া, এবং সাবেক যারা আছি তাদের নিরাপত্তা দিয়ে ইসলামনগর, আমবাগানে শিফট করা।

এদিকে আজ দুপুর সারে ১২টায় আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সংবাদ সম্মেলনে জাবি শিক্ষার্থীদের সঙ্গে স্থানীয়দের সংঘর্ষের ঘটনায় হামলাকারীদের বিরুদ্ধে মামলা করতে ২৪ ঘন্টার আল্টিমেটাম বেধে দেয়া হয়েছে। জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে এ আল্টিমেটাম দিয়েছেন তারা।

প্রসঙ্গত, গত শুক্রবার ক্রিকেট খেলাকে কেন্দ্র করে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সঙ্গে স্থানীয় বাসিন্দারের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ সময় স্থানীয়রা শিক্ষার্থীদের চারটি মোটরসাইকেল পুড়িয়ে দেয়। সংঘর্ষে প্রায় অর্ধশতাধিক শিক্ষার্থী আহত হয়।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ