বাঁচতে চায় ব্লাড ক্যান্সারে আক্রান্ত জবি শিক্ষার্থী রবিন

ক্যান্সার
রবিন কুমার হালদার  © টিডিসি ফটো

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের স্নাতকোত্তর ১ম সেমিস্টারের মেধাবী শিক্ষার্থী (আইডি-বি ১৫০৪০৬০১৮) রবিন কুমার হালদার ‘লিওকোমিয়া’ নামক এক জটিল রোগে আক্রান্ত। চিকিৎসা বিজ্ঞানে যা এক ধরনের ব্লাড ক্যান্সার। মেধাবী শিক্ষার্থী রবিনের রোগাক্রান্ত হওয়ায় তার পরিবার, সহপাঠী ও শিক্ষকদের মাঝে নেমেছে শোকের ছায়া। তার জন্য দোয়া ও সহযোগিতা চেয়েছেন তার স্বজন ও সহপাঠীরা। রবিনের চিকিৎসার জন্য তাকে দ্রুত চেন্নাইয়ে নিতে হবে এবং এতে প্রায় ২০ লক্ষ টাকার প্রয়োজন বলে জানিয়েছেন তার চিকিৎসকরা।

রবিনের পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, বর্তমানে সে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের হেমাটোলজি বিভাগে চিকিৎসাধীন আছেন। লকডাউন-পরবর্তী চিকিৎসার জন্য ইতোমধ্যেই ভারতে নেওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন সেখানকার চিকিৎসকরা।

তার বর্তমান অবস্থা পর্যবেক্ষণ করে ডাক্তার জানিয়েছেন, রবিনের যথাযথ চিকিৎসার জন্য ভারতের চেন্নাইয়ে নিতে হবে। এতে প্রাথমিকভাবে প্রায় ২০ লাখ টাকা প্রয়োজন। টাকার পরিমাণ আরও বাড়তে পারে। যা তার পরিবারের পক্ষে বহন করা সম্ভব নয়।

সহপাঠীরা জানায়, রবিন হালদার ক্যাম্পাসে খুবই প্রাণচঞ্চল ও হাসি-খুশি ছিলো। সবার সাথে ভালো ব্যবহার করত। কিন্তু লিওকোমিয়া নামক মরণব্যাধিতে আক্রান্ত হওয়ায় তারা সবাই হতবাক। এমতাবস্থায় বন্ধুর জন্য সবার কাছে দোয়া চেয়েছেন এবং তার পরিবারের কথা বিবেচনা করে চিকিৎসা সহায়তার জন্য সবার কাছে অনুরোধ জানিয়েছেন।

রবিন কুমারের সহপাঠী মাসুম বিল্লাহ বলেন, ‘রবিন আমাদের ব্যাচের ভদ্র ছেলেগুলোর মধ্যে একজন। সবসময় ও পড়াশোনা নিয়েই থাকতে ভালোবাসতো, অবশ্য তার জন্য আমরা অনেক মজা করতাম ওকে নিয়ে। কিন্তু রবিনের এভাবে হঠাৎ অসুস্থ হয়ে যাওয়া আমরা মেনে নিতে পারছিনা। আল্লাহ চাইলে রবিন আবার আমাদের মাঝে সুস্থ হয়ে ফিরে আসবে, আর এজন্য আপনাদের সবার একটু সহযোগিতা দরকার। সবাইকে যার যার জায়গা থেকে রবিনের জন্য এগিয়ে আসার আহবান করছি।’

রবিনের জন্য সাহায্য করতে চাইলে এই নম্বরগুলোতে বিকাশ/রকেট/নগদের মাধ্যমে টাকা পাঠাতে পারবেন- চপল রহমান (বন্ধু) বিকাশ: ০১৯৭৪৮৬৪৮৪২। মাসুম বিল্লাহ (বন্ধু) রকেট: ০১৫২১৫০২১৩৫০। আশিকুজ্জামান (বন্ধু) নগদ: ০১৭৫৯১৩১৯৯১।

এছাড়া মো. রাইসুল ইসলাম (শিক্ষক), একাউন্ট নাম্বার -২৮০৩১৯২৪৮৬০০১, সিটি ব্যাংক, জনসন রোড শাখাতেও সহায়তা পাঠাতে পারেন।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ