গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষায় ন্যূনতম ফি নেয়ার সিদ্ধান্ত

গুচ্ছপদ্ধতির ভর্তি পরীক্ষা
অর্থ কমিটির সভায় অতিথিবৃন্দ  © টিডিসি ফটো

করোনা পরিস্থিতি ও দেশের সার্বিক অবস্থা বিবেচনা করে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষায় শিক্ষার্থীদের থেকে ন্যূনতম পরীক্ষা ফি নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে গুচ্ছভুক্ত সমন্বিত ভর্তি কমিটির অর্থ উপ-কমিটি।

মঙ্গলবার (১৯ জানুয়ারি) জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্যের সভা কক্ষে অর্থ উপ-কমিটির প্রথম সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

গুচ্ছভুক্ত সমন্বিত ভর্তি অর্থ উপ-কমিটির আহবায়ক ও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার অধ্যাপক ড. কামালউদ্দীন আহমদ এর সভাপতিত্বে সভায় উপস্থিত ছিলেন অর্থ উপ-কমিটির সদস্য এবং শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার অধ্যাপক ড. মো আনোয়ারুল ইসলাম, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার অধ্যাপক ড. মো. আসাদুজ্জামান এবং নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ ফারুক উদ্দিন।

সভায় গুছভুক্ত ভর্তি পরীক্ষার বাজেট সংক্রান্ত বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয় এবং বাজেটে গুচ্ছভুক্ত ভর্তি পরীক্ষার আয়-ব্যয় সংক্রান্ত খাতসমূহ নির্ধারণ করা হয়। এছাড়াও পরবর্তী সভায় পূর্ণাঙ্গ বাজেট প্রণয়নের সিদ্ধান্তসহ করোনার সার্বিক দিক বিবেচনা করে শিক্ষার্থীদের থেকে ন্যূনতম পরিক্ষা ফি ধার্যের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

সভায় দিক নির্দেশনামূলক বক্তব্য প্রদান করেন গুছভুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়সমূহের সমন্বিত ভর্তি কমিটির যুগ্ম আহায়ক ও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমান। এছাড়াও সভায় ভর্তি কমিটির অর্থ উপ-কমিটির সদস্য সচিব এবং জগনাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থ ও হিসাব দপ্তরের পরিচালক ড. কাজী মো. নাসির উদ্দীন উপস্থিত ছিলেন।

গুচ্ছভুক্ত সমন্বিত ভর্তি অর্থ উপ-কমিটির আহবায়ক ও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার অধ্যাপক ড. কামালউদ্দীন আহমদ বলেন, গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা আমাদের জন্য নতুন একটি অভিজ্ঞতা। এ পরীক্ষায় সার্বিক খরচ কেমন হতে পারে তা আমরা সভায় আলোচনা করেছি। তারপর করোনা মহামারীর মধ্যে শিক্ষার্থীদের ভর্তি পরীক্ষার বিষয়ে আমাদের ভাবনা আছে। সামনে উপাচার্যদের সভায় শিক্ষার্থীদের জন্য সহনীয় পরীক্ষা ফি নেওয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।


মন্তব্য

এ বিভাগের আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ