জবি শিক্ষার্থীর নির্দেশনায় পালা ‘ভেলুয়া সুন্দরী’

মঞ্চ নাটক
ছবিতে ভেলুয়ার দৃশ্য ও নির্দেশক  © টিডিসি ফটো

মানবাধিকার নাট্য পরিষদ ঝিনাইদহ জেলা শাখার ২২ তম নাট্য উৎসব-২০২০ এ প্রদর্শিত হলো জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) নাট্যকলা বিভাগের ২০১৩-১৪ সেশনের শিক্ষার্থী বাসার হুসাইনের নির্দেশনায় পালা ‘ভেলুয়া সুন্দরী’। শুক্রবার ( ৪ নভেম্বর) সন্ধ্যা ৬ টা ঝিনাইদহ জেলা শিল্পকলা একাডেমিতে উক্ত পালা প্রদর্শিত হয়।

‘‘আমির সদাগর একদিন বাবা মায়ের কাছ থেকে অনুমতি নিয়ে শিকারে চলে যায় তেলাইন্যা নগরে। সেখানে গিয়ে ভেলুয়ার হিরুণী কৈতরে বধ করে। ভেলুয়ার সাত ভাই কৈতর বধ করার কারণে তাকে বন্দি করে। ঐদিকে ভেলুয়ার মা আমির সদাগরের পরিচয় নিতে গিয়ে দেখে তারই বোনের ছেলে। তারপর আমির সদাগরের সাথে ভেলুয়ার বিয়ে হয়ে যায়। ভেলুয়া আমিরের সাথে চলে আসে শাপলা বন্দরে। কয়েক মাস ভালো কাটালেও ভেলুয়ার ঠায় হয় দাসি রূপে। নদীর ঘাটে জল আনতে গিয়ে ধরা পড়ে ভোলা সদাগরের হাতে। ভোলার হাত থেকে ভেলুয়াকে উদ্ধার করতে পারলেও ভেলুয়া আর বেঁচে থেকে না।’’

বাসার হুসাইনের নির্দেশনায় উক্ত পালা-তে অভিনয় করেছেন মুক্তি মাসুদ নুপুর ও স্বরণী আক্তার। মিউজিকে ছিলেন সূচনা সরকার, সুমন্ত কুমার ও আরিফুজ্জামান লিখন।

নির্দেশক বলেন, ‘‘বাংলাদেশের যে নিজস্ব সংস্কৃতির অংশ পালা নাটক। আমরা এই পালার জন্যে ৩ মাস নিরলস্ পরিশ্রম করেছি। আমাদের সবারই চাওয়া ছিলো আমাদের এই প্রডাকশনটা যেন হয়। এ জন্য আমরা আমাদের সকল প্রয়োজনীয় কাজকে কম গুরুত্ব দিয়ে এই কাজকে অধিক গুরুত্ব দিয়েছি। ধন্যবাদ জানায় আমার বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের যাদের কাছে আমি নাটক ও সামগ্রিক বিষয়ে জ্ঞানলাভ করেছি।’’

তিনি আরো বলেন, ‘‘পালা নাটক নিয়ে আমাদের আরো কাজ করার ইচ্ছা আছে। আমরা বাংলাদেশের সংস্কৃতি পালা নাটকে জীবিত রাখার লক্ষ্যে ভবিষ্যৎ এ একটি উৎসব করতে চাই।’’


মন্তব্য