তেঁতুলতলা মাঠে এবার ঈদের জামাত হোক: খুশি কবির

রাবি
খুশি কবির   © সংগৃহীত

মানবাধিকার কর্মী খুশি কবির বলেছেন, আমরা চেয়েছি, এবারের ঈদুল ফিতরের জামাত ওখানেই (তেঁতুলতলা মাঠ) হোক। তেঁতুলতলা মাঠে থানা ভবন নির্মাণকাজ বন্ধ রাখার দাবি জানাচ্ছি।

বুধবার (২৭ এপ্রিল) দুপুরে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এ কথা বলেন তিনি।

তিনি আরও জানান, কলাবাগান তেঁতুলতলা মাঠের নির্মাণ কাজ আপাতত বন্ধে ডিএমপি কমিশনারের সঙ্গে কথা বলে সিদ্ধান্ত নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এবং বিকল্প কোনো স্থানে থানা ভবন নির্মাণ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা করার কথা জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

এর আগে, রাজধানীর তেঁতুলতলা মাঠে থানা ভবন নির্মাণ প্রতিবাদে আন্দোলনে নামা স্থপতি ইকবাল হাবিব, আইনজীবী সৈয়দা রিজওয়ানা হাসান, সাংস্কৃতিক কর্মী সংগীতা ইমাম, সমাজকর্মী খুশী কবির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন।

বেলার নির্বাহী পরিচালক সৈয়দা রিজওয়ানা হাসান জানান, খেলার মাঠটির প্রয়োজনীয়তার ব্যাপারটি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীও অনুভব করছেন। কিন্তু ওনারা তো ২৭ কোটি টাকা দিয়ে দিয়েছেন। তখন আমরা বলেছি, সেটা তো সরকারি ট্রেজারিতেই আছে। ওই এলাকায় আরও পরিত্যক্ত জায়গা আছে। একটা জায়গার কথা ইকবাল ভাই স্পষ্ট করে বলেছেনও।

তিনি আরও জানান, পুলিশের সঙ্গে এলাকাবাসী মুখোমুখি হোক, এটা আমরা চাই না। এখানে দেয়াল নির্মাণ হয়ে গেলে ঈদের জামাতটা আর করা যাবে না। তাই এটার নির্মাণকাজ বন্ধ করতে হবে।

আরও পড়ুন : মাঠ না থাকলে কি মোবাইলে ভিডিও গেম খেলবো

এদিকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান জানিয়েছেন, আপাতত থানার জন্য এটাই নির্দিষ্ট জায়গা। বরাদ্দ হওয়ায় জায়গাটি পুলিশেরই।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান বলেন, কলাবাগান তেঁতুলতলা যে মাঠ নিয়ে আন্দোলন চলছে, সেটি কখনোই মাঠ ছিল না। এটি একটি খাসজমি। জেলা প্রশাসক এটি বরাদ্দ দিয়েছে থানা ভবন নির্মাণের জন্য। তিনি বলেন, আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় থানা ভবন নির্মাণ অত্যন্ত দরকার। যে কারণে ২৭ কোটি টাকায় বরাদ্দ পেয়ে এ টাকা দিয়ে জায়গাটি কেনা হয়েছে পুলিশের পক্ষ থেকে। থানা ভবন নির্মাণের জন্য এর চেয়ে সুন্দর জায়গা পেলে বিকল্প সিদ্ধান্ত হবে। আপাতত এটি পুলিশের সম্পত্তি।


x