সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠ দখল করে চলছে রাস্তা নির্মাণ

দখল
বিদ্যালয়ের মাঠ দখল করে চলছে রাস্তা নির্মাণ  © টিডিসি ফটো

রাজশাহী জেলার পুঠিয়া উপজেলার ২নং বেলপুকুরিয়া ইউনিয়নের বাশপুকুরিয়া সরকারি প্রথমিক বিদ্যালয়ের মাঠ দখল করে চলছে রাস্তা নির্মাণের কাজ। এতে করে চরম অব্যবস্থানার মধ্যে রয়েছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানটি।

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান যাদের দেখভালের দায়িত্ব তাদের উদাসিনতা আর গাফলতির কারণে এমন পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে বলে দাবি এলাকাবাসীর। পুঠিয়া উপজেলার ২নং বেলপুকুরিয়া ইউনিয়নের বাশপুকুরিয়া গিয়ে দেখা গেছে এমন চিত্র।

আরও পড়ুন: ‘সরকারি চাকরিজীবী’ পাত্র না পেয়ে আত্মহত্যা করেছেন শিল্পা

সরজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মাঠ দখল করে রাখা হয়েছে নির্মান সামগ্রী। বিদ্যালয়ের মাঠজুড়ে রাখা হয়েছে ইট, পাথর, বালি ও বিটুমিন মিশ্রণের মেশিন। কোমলমতি শিক্ষার্থীদের চারণভূমি বিদ্যালয় মাঠজুড়ে পাথরের স্তূপ। যেন গড়ে তোলা হয়েছে পাথরের খনি। রাস্তা সংস্কারের ইট, পাথর ও বালিসহ বিভিন্ন নির্মাণ সামগ্রী স্তুপ করে রাখায় স্কুল মাঠটি ব্যবহার অনুপযোগী হয়ে পড়েছে।

আরও পড়ুন: থার্টি ফার্স্ট উদযাপনে যা যা করা যাবে না

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক লোক জানায়, শুনেছি স্কুল মাঠ ঠিকাদারকে ভাড়া দেয়া হয়েছে। প্রতিদিনই পাথর, বালি বোঝাই গাড়ি বিদ্যালয়ে আসছে। সেখানে বসানো মেশিনে বিটুমিন মিশ্রণ হয়ে রাস্তার কাজে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। বিদ্যালয় খুললে পাথর সরিয়ে নিলেও মাঠে দেবে যাওয়া ও বিচ্ছিন্নভাবে পড়ে থাকা পাথর দিয়ে শিক্ষার্থীরা আহত হতে পারে। তারা দ্রুত পাথর সরিয়ে নেয়ার দাবি জানান।

আর্থিক সুবিধা নেয়ার কথা অস্বীকার করে বিদ্যালয়টির সভাপতি মো. বাবলু রহমান বলেন, ঠিকাদার আমাকে মৌখিক ভাবে জানিয়েছে বাশপুকুরিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠে নির্মাণ সামগ্রী রেখেছেন।

আরও পড়ুন: স্কুল শিক্ষিকার শয়ন কক্ষ থেকে যুবক আটক

এ বিষয় জানতে চাইলে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের একজন কর্মকর্তা বলেন, বিদ্যালয় বন্ধ থাকায় ও জায়গা না পাওয়ার কারণে সরকারি রাস্তা সংস্কার কাজের নির্মাণ সামগ্রী ওই বিদ্যালয় মাঠে রাখা হয়েছে। কাজ শেষ পর্যায়ে, দ্রুত সবকিছু সরিয়ে নেওয়া হবে।

পুঠিয়া উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার এবি এম সনোয়ার হোসেন বলেন, বাশপুকুরিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠে নির্মাণ সামগ্রী রাখার ব্যাপারে আমি কিছুই জানিনা। আমি কিছু বলতেও পারছি না।

তবে এমন ঘটনা ঘটে থাকলে দ্রুত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান তিনি। 


মন্তব্য

x