হলের সঙ্গে সম্পর্কিত না হওয়ায় স্কুল আগে খুলছে: গোলাম ফারুক

সৈয়দ মো. গোলাম ফারুক
মাউশির মহাপরিচালক সৈয়দ মো. গোলাম ফারুক  © ফাইল ফটো

করোনাভাইরাসের কারণে গত বছরের ১৭ মার্চ থেকে বন্ধ হয়েছে দেশের সব ধরনের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। তবে এক প্রায় এক বছর পর প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক স্তরের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলছে আগামী ৩০ মার্চ থেকে। এছাড়া দেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলো খুলবে আরও প্রায় দুই মাস পর ২৪ মে থেকে।

এদিকে করোনার কারণে সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান একসঙ্গে বন্ধ হলেও স্কুল-কলেজ-মাদরাসা আগে খোলা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন অনেকে। তারা বলছেন, বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ের শিক্ষার্থীরা সতর্ক থেকে ক্লাসে ফিরতে পারবেন। কিন্তু স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরা তাদের বয়সের তুলনায় নিজেদেরকে নিরাপদ রাখতে পারবেন কিনা-এমন প্রশ্নও তুলেছেন তারা।

তবে সরকারের দায়িত্বশীলরা বলছেন, স্কুল-কলেজ পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে হলে থাকার বিষয় নেই। এছাড়া তাদের বয়স কম হওয়ায় টিকা নেওয়ার বিষয়টিও বাধ্যবাধকতায় পড়ে না। সেজন্য স্কুল-কলেজ আগে খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন।

এ প্রসঙ্গে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের (মাউশি) মহাপরিচালক সৈয়দ মো. গোলাম ফারুক গণমাধ্যমকে বলেছেন, হলের সঙ্গে স্কুলগুলো সম্পর্কিত না। এছাড়া স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীদের টিকা নেওয়ার ক্ষেত্রে বাধ্যবাধকতা নেই। স্কুল-কলেজগুলো এজন্যই আগে খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে বলে তিনি জানান।

এছাড়া স্কুল-কলেজের খোলার প্রস্তুতির জন্য যেসব নির্দেশনা বা গাইডলাইন আগে দেওয়া হয়েছে তা পালন করতে হবে বলেও জানান গোলাম ফারুক।

গত ২২ ফেব্রুয়ারি অনলাইনে সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি জানান, সব বিশ্ববিদ্যালয়ে শ্রেণিকক্ষে পাঠদান আগামী ২৪ মে থেকে শুরু হবে। এর আগে ১৭ মে থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হলগুলো খুলে দেওয়া হবে। হলগুলো খোলার আগেই শিক্ষক-শিক্ষার্থী-কর্মকর্তা-কর্মচারী সবাইকেই টিকা দেওয়া হবে।

পরে গত ২৭ ফেব্রুয়ারি শিক্ষামন্ত্রী জানান, আগামী ৩০ মার্চ থেকে স্কুল-কলেজ-মাদ্রাসা খুলে দেওয়া হবে। সে হিসেবে বিশ্ববিদ্যালয়গুলো খুলবে স্কুল-কলেজ খোলার দুই মাস পর।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ