হাল্ট প্রাইজ যবিপ্রবি: রেজিস্ট্রেশনের শেষ তারিখ ২০ অক্টোবর

হাল্ট প্রাইজ যবিপ্রবি
হাল্ট প্রাইজ যবিপ্রবি  © টিডিসি ফটো

দ্বিতীয়বারের মতো যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (যবিপ্রবি) আয়োজিত হতে যাচ্ছে বিজনেস আইডিয়া প্রদানের আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতা হাল্ট প্রাইজের। প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করতে যবিপ্রবি শিক্ষার্থীদের ২০ অক্টোবরের মধ্যে রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন করতে হবে। প্রতিযোগিতাটি সারা বিশ্বের মতো বাংলাদেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়েও অনুষ্ঠিত হচ্ছে ।

যবিপ্রবির ক্যাম্পাস ডিরেক্টর সৌমিত্র দাস জানান, ২০ তারিখের মধ্যে টিম রেজিস্ট্রেশন শেষ হওয়ার পরপরই আমরা ঘোষণা করবো প্রতিযোগিতার দিন তারিখ। প্রতিযোগীরা তাদের আইডিয়া উপস্থাপন করবে এবং এটি হবে অনলাইন ভিত্তিক। বিচারকমণ্ডলী উপস্থিত থেকে আইডিয়াগুলোর ব্যাপারে বলবেন। পরিকল্পনা আছে আগামীতে পরিস্থিতি ভালো হলে পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানটি সরাসরি ক্যাম্পাসে আয়োজন করার।

যবিপ্রবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আনোয়ার হোসেন শুভকামনা জানিয়ে বলেন, আমি শিক্ষার্থীদেরকে সবসময় এক্সট্রা কারিকুলাম এক্টিভিটিসে উৎসাহ দিয়ে আসছি। একজন শিক্ষার্থীর নিজেকে মেলে ধরা, নিজের প্রতিভা বিকাশের জন্য এ ধরনের কার্যক্রমে যুক্ত হওয়া জরুরি। বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে সবধরনের সহযোগিতা থাকবে।

ছাত্র পরামর্শ ও নির্দেশনা দপ্তরের পরিচালক ড. মো. মীর মোশাররফ হোসেন বলেন, করোনাকালীন স্থবিরতায় হাল্ট প্রাইজ যবিপ্রবির যে আয়োজন সেটি শিক্ষার্থীদের জন্য সুযোগ তৈরি করবে নিজেদের আইডিয়াগুলো তুলে ধরার। যার মাধ্যমেই হয়তোবা পৃথিবীর বিভিন্ন সমস্যার সমাধান আসবে। এটির সাথে যুক্ত সবার জন্য শুভকামনা।

প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের জন্য হাল্ট প্রাইজ যবিপ্রবির যে ওয়েবসাইট (www.hultprizea.com/just-jashore-preview) আছে সেখানে গিয়ে টিম রেজিস্ট্রেশন ফরম পূরণ করতে হবে। প্রত্যেক টিমে কমপক্ষে তিনজন এবং সর্বোচ্চ চারজন করে সদস্য থাকতে পারবে।

উল্লেখ্য, ‘হাল্ট প্রাইজ’ এমন একটি ‘আইডিয়া কম্পিটিশন’ যেখানে মূলত তরুণরা তাদের মেধা-মনন ব্যবহার করে একটি অদ্বিতীয় ব্যবসায়িক পরিকল্পনা প্রদানের মাধ্যমে বর্তমান বিশ্বের যে কোন সামাজিক, অর্থনৈতিক ও পরিবেশ সংক্রান্ত অন্তরায় থেকে পরিত্রাণ পেতে সাহায্য করে থাকে। প্রতি বছর বিশ্বের ১২১ টি দেশের ১৫০০ এর বেশি বিশ্ববিদ্যালয়ে এই প্রতিযোগিতাটি অনুষ্ঠিত হয়ে থাকে। বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায় থেকে বিজয়ী দলকে আঞ্চলিক বাছাই প্রক্রিয়ার মাধ্যমে পাঠানো হয় চূড়ান্ত পর্বে। চূড়ান্ত প্রতিযোগিতায় বিজয়ী দলকে উপহার হিসেবে দেওয়া হয় ১০ লক্ষ মার্কিন ডলার।

 


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ