শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধের সিদ্ধান্ত হয়নি: মন্ত্রণালয়

করোনাভাইরাস
শিক্ষা মন্ত্রণালয়  © লোগো

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনির বরাত দিয়ে বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অনির্দিষ্টকালের জন্য শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের কথা বলা হচ্ছে। যা একটি গুজব বলে জানিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। আজ শনিবার (১৫ জানুয়রি) ‍দুপুরে মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা এম এ খায়ের এ তথ্য জানান।

তিনি জানান, শিক্ষামন্ত্রী এই সংক্রান্ত কোন বক্তব্য সাম্প্রতিক সময়ে দেননি। করোনা সংক্রমণের ঊর্ধ্ব গতির প্রেক্ষিতে সরকার নিয়মিত পরিস্থিতি মনিটর করছে। করোনা সংক্রান্ত জাতীয় পরামর্শক কমিটির সাথে আবার মিটিং করা হবে। তারপর এই বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। সরকার এই মুহুর্তে শিক্ষার্থীদের টিকা প্রদান নিশ্চিত করার বিষয়ে সর্বাধিক গুরুত্ব দিচ্ছে।

আরও পড়ুন: শিক্ষার্থীদের টিকা দেয়া সম্পন্ন হবে জানুয়ারিতেই

এম এ খায়ের আরও জানান, এই সংক্রান্ত কোন রকমের গুজবে কান না দিতে এবং অগাম তথ্য প্রদান থেকে বিরত থাকতে সকলকে অনুরোধ করা হলো।

এর আগে এর আগে, গত ৯ জানুয়ারি রাতে প্রায় দেড় ঘণ্টাব্যাপী কোভিড-১৯ সংক্রান্ত জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটির সঙ্গে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের বৈঠক হয়। বৈঠকে টেকনিক্যাল কমিটির সদস্যরা শিক্ষামন্ত্রীকে নানা ধরনের পরামর্শ প্রদান করেন।

আরও পড়ুন: এসএসসির পুনর্নিরীক্ষণের ফল ২১ জানুয়ারি

পরের দিন সোমবার (১০ জানুয়ারি) সকালে এক সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষামন্ত্রী জানান, আপাতত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ হচ্ছে না। তিনি বলেন, আমরা স্বাস্থ্যবিধির উপর জোর দিচ্ছি। পরিস্থিতি খারাপের দিকে গেলে পরবর্তিতে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। 

শিক্ষামন্ত্রী আরও বলেন, শিক্ষার্থীদের জন্য টিকা কার্যক্রম চলমান থাকবে। যাদের অন্তত এক ডোজ টিকাও নেওয়া হয়নি তারা ১২ তারিখের পর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে না এসে অনলাইনে ক্লাস করতে হবে।

আরও পড়ুন: কলেজ শিক্ষার্থীদের বিষয়-গ্রুপ পরিবর্তনের সুযোগ ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত

তিনি আরও বলেন, যখন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলেছিলাম তার থেকে আমরা এখন ভালো অবস্থায় আছি। তখন কোন টিকা ছিল না, এখন প্রায় সবাই টিকার আওতায় চলে এসেছে। এখন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ করা হবে না। স্বাস্থ্যবিধি মানার বিষয়টি জোরদার করা হবে। সীমিত পরিসরেই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান চলবে।


মন্তব্য

x