ভর্তি পরীক্ষার তারিখ নির্ধারণ নিয়ে যা বললেন শিক্ষামন্ত্রী

ভর্তি পরীক্ষার তারিখ নির্ধারণ নিয়ে যা বললেন শিক্ষামন্ত্রী
  © সংগৃহীত

পবিত্র ঈদুল ফিতরের পর আগামী ২৪ মে থেকে দেশের সব ধরনের বিশ্ববিদ্যালয়ে সশরীরে ক্লাস শুরু হবে। আর তার এক সপ্তাহ আগে ১৭ মে আবাসিক হল খুলে দেওয়া হবে। করোনাকালীন উচ্চশিক্ষার বিভিন্ন বিষয় নিয়ে সোমবার (২২ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

এসময় শিক্ষামন্ত্রী জানান, বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্লাস শুরুর সঙ্গে ভর্তি পরীক্ষার কোনো সম্পর্ক নেই। ভর্তি পরীক্ষার তারিখ নির্ধারণ করবে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী (ইউজিসি) এবং সংশ্লিষ্ট বিশ্ববিদ্যালয়। আর যদি পরীক্ষার তারিখ ঘোষণা করে তাহলে সেটি পুননির্ধারণ করবে কিনা সেটি তারা আলাপ-আলোচনা করবেন।

সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ে সশরীরে ক্লাস শুরুর সঙ্গে ভর্তি পরীক্ষার সঙ্গে সমন্বয়ের প্রয়োজনটা আপনারা কোথায় দেখছেন। বিশ্ববিদ্যালয়ে পাঠদান শুরু হবে যারা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী তাদের জন্যে, আর ভর্তি পরীক্ষাটা হবে যারা এইচএসসি পাস করেছেন, বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তিচ্ছু তাদের জন্যে। এই দুই শিক্ষার্থী গোষ্ঠীর মধ্যে একজনের ওপর তো আরেকজন নির্ভরশীল না। তারিখগুলো কেন একটা আরেকটার ওপর নির্ভরশীল বলে ভাবছেন আমি বুঝতে পারছি না।

ডা. দীপু মনি বলেন, ভর্তি পরীক্ষার তারিখ নিয়ে প্রশ্ন থাকতে পারে কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয়ের শ্রেণিকক্ষে পাঠদানের সঙ্গে তো আসলে ভর্তি পরীক্ষার সরাসরি কোনো সম্পর্ক নেই। এখন পর্যন্ত যেসব তারিখ বলা আছে তাতে শ্রেণিকক্ষে পাঠদান শুরুর আগেই সেটা আছে। এই দুটো সম্পর্কযুক্ত নয়।

শিক্ষামন্ত্রী আরও বলেন, ভর্তি পরীক্ষার তারিখ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন ও অন্য সকল বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর সঙ্গে আলাপআলোচনা করে গুচ্ছ পরীক্ষার তারিখগুলো নির্ধারিত হবে আর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় নতুন করে এটার সঙ্গে সমন্বয় করবে কিনা সেটা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবে।

বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে চলমান একডেমিক পরীক্ষাগুলো নেওয়া হবে কিনা-সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, পরীক্ষা নিয়ে যে সিদ্ধান্ত তা সকল বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য সমভাবে প্রযোজ্য। অথ্যাৎ, আগামী ২৪ মে’র আগে কেউ কোন ধরনের পরীক্ষা নেবেন না।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ