স্কুলের পিকনিক বাস উল্টে প্রাণ গেল দু’জনের, আহত ৪০

সড়ক দুর্ঘটনায় হতাহতদের নিয়ে যাওয়া হয় যশোর জেনারেল হাসপাতালে
সড়ক দুর্ঘটনায় হতাহতদের নিয়ে যাওয়া হয় যশোর জেনারেল হাসপাতালে  © সংগৃহীত

যশোরের বাঘারপাড়ার বিদ্যালয়ের পিকনিকের বাস উল্টে প্রাণ হারিয়েছেন দু’জন। এতে আহত হয়েছে আরও অন্তত ৪০ জন। বৃহস্পতিবার (৯ ফেব্রুয়ারি) রাত সাড়ে ৮টার দিকে কাশিয়ানি উপজেলার ভাটিয়াপাড়া মোড়ে এ দুর্ঘটনা ঘটে। পিকনিক শেষে গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়া থেকে ফিরছিল বাসটি।

নিহতদের মধ্যে রয়েছেন বাকড়ী বহুমুখী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ল্যাব সহকারী সুদীপ্ত বিশ্বাস (৩৫) ও অভিভাবক সদস্য বিদ্যুৎ কুমার বিশ্বাস (৪৫)। আহতদের মধ্যে অন্তত ২০ জনকে ভর্তি করা হয়েছে যশোর জেনারেল হাসপাতালে।

বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক বিশ্বজিৎ কুমার পাল জানান, সকালে তিনটি বাসে ১৫০ জন টুঙ্গিপাড়ায় পিকনিকে যান। এর মধ্যে শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও অভিভাবক সদস্যরা ছিলেন। শিক্ষার্থীরা অধিকাংশই নবম ও দশম শ্রেণির। ফেরার পথে রাত সাড়ে ৮টার দিকে ভাটিয়াপাড়া মোড়ে বাসগুলোর একটি অপরটিকে ওভারটেক করতে গিয়ে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার পাশে গাছে ধাক্কা দিয়ে উল্টে যায়।

বাসটিতে ৫০ জন ছিলেন জানিয়ে তিনি বলেন, ঘটনাস্থলে নিহত হন বিদ্যুৎ কুমার বিশ্বাস। এ ছাড়া কমবেশি সবাই আহত হয়েছে। আহতদের স্থানীয়রা উদ্ধার করে কাশিয়ানী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও বিভিন্ন ক্লিনিকে নেয়। অনেককে ফরিদপুরে বঙ্গবন্ধু মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

বিশ্বজিৎ কুমার আরও বলেন, কাশিয়ানি থেকে আহতদের পাঁচটি অ্যাম্বুলেন্সে করে রাত সাড়ে ১০টার দিকে যশোর জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হয়। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সুদীপ্ত মারা যান।

রাতে হাসাপাতালে অনেক রোগীর চাপে চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীদের বেগ পেতে হয়। খবর পেয়ে বাড়িতে থাকা চিকিৎস ও সেবিকারা হাসপাতালে আসেন। হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক সাইফুর রহমান জানান, একসঙ্গে চিকিৎসা দিতে গিয়ে কত জন  এসেছেন তার তালিকা করা যায়নি।

হাসপাতালের তত্বাবধায়ক আক্তারুজ্জামান বলেন, ঘটনাস্থলে একজন ও হাসপাতালে আরেকজন মারা যান। তাৎক্ষণিকভাবে জেলা প্রশাসক মো. তমিজুল ইসলাম খান হাসপাতালে গিয়ে চিকিৎসার তদারকি করেছেন।