অনার্স ৪র্থ বর্ষের বিশেষ পরীক্ষা ডিসেম্বরে

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়
জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়  © ফাইল ছবি

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৯ সালের অনার্স চতুর্থ বর্ষ পরীক্ষায় অকৃতকার্য শিক্ষার্থীদের বিশেষ পরীক্ষা ডিসেম্বরের শেষ সপ্তাহে অনুষ্ঠিত হবে। বুধবার (১৩ অক্টোবর) বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক বদরুজ্জামানের স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে ২০১৩-১৪ শিক্ষাবর্ষের প্রণীত সিলেবাস ও রেগুলেশন অনুযায়ী ২০২০ সালের অনার্স চতুর্থ বর্ষ পরীক্ষার সকল বিএ, বিএসএস, বিবিএ ও বিএসসি পরীক্ষার্থীদের ফরম পূরণ সংক্রান্ত যাবতীয় কার্যক্রম অনলাইনে আগামী ১৯ অক্টোবর থেকে শুরু হবে। পরীক্ষার বিস্তারিত সময়সূচি এবং অন্যান্য যাবতীয় তথ্য বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে দ্রুতই প্রকাশ করা হবে।

পরীক্ষার্থীদের অনলাইনে আবেদন ফরম ডাউনলোডের সময়সীমা ১৯ অক্টোবর থেকে ১১ নভেম্বর পর্যন্ত। আবেদন ফরম কলেজ থেকে নিশ্চিত করার শেষ তারিখ ১৩ নভেম্বর। পরীক্ষার্থীদের অনলাইনে পূরণকৃত বিবরণী ফরম, হিসাব বিবরণী ফরম, ইনকোর্সের নম্বরের মূল কপি ও প্রিন্ট কপি বিষয়ভিত্তিক আলাদাভাবে বিশ্ববিদ্যালয় আঞ্চলিক কেন্দ্র জমাদানের শেষ তারিখ ১৬ নভেম্বর।

পড়ুন: অনার্স ৪র্থ বর্ষের বিশেষ পরীক্ষা নেবে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়

একাডেমিক কাউন্সিলের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী এ পরীক্ষায় পরীক্ষার্থীদের বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য কোনো ফি দিতে হবে না। শুধুমাত্র কেন্দ্র ফি বাবদ প্রতি পরীক্ষার্থীকে একটি কোর্সের জন্য ২০০ টাকা এবং একাধিক কোর্সের জন্য ৩০০ টাকা পরিশোধ করতে হবে। তবে নির্ধারিত সময়ের পরে জরিমানা দিয়ে ফরম পূরণের কোনো সুযোগ থাকবে না।

এছাড়াও কেন্দ্র ফি হিসেবে আদায়কৃত মোট অর্থের পরীক্ষার্থীর ৫০ টাকা নিজ কলেজের পরীক্ষা সংক্রান্ত খরচের জন্য রেখে পরীক্ষার্থী জনপ্রতি অবশিষ্ট টাকা নির্ধারিত পরীক্ষা কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার কাছে রোল নম্বর ও রেজিস্ট্রেশন নম্বর বিবরণীসহ পরীক্ষার তিন দিন আগে জমা দিতে হবে।

যে শিক্ষার্থীরা এ পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবেন

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে ২০১৩-১৪, ২০১৪-১৫ ও ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের নিবন্ধিত যে শিক্ষার্থীরা ২০১৯ সালের অনার্স চতুর্থ বর্ষ পরীক্ষার সব বিষয়ে অংশগ্রহণ করে এক বা একাধিক বিষয়ে অকৃতকার্য হয়েছেন, শুধু তারাই বিশেষ এ পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবেন। অনার্স প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় বর্ষের সব বিষয়ে উত্তীর্ণ (সর্বনিম্ন ডি গ্রেড প্রাপ্ত) পরীক্ষার্থীরা এ পরীক্ষায় অংশ নিতে পারবেন।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ