নিরপরাধ শিক্ষার্থীদের হয়রানি না করার নির্দেশনা রয়েছে: ঢাবি উপাচার্য

নিরপরাধ শিক্ষার্থীদের হয়রানি না করার নির্দেশনা রয়েছে: ঢাবি উপাচার্য
ঢাবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) সমাজসেবা সম্পাদক ও ছাত্র অধিকার পরিষদের বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি আখতার হোসেনকে মঙ্গলবার আইন অনুষদের সামনে থেকে গ্রেফতার করা হয়। এর আগে গত ২৮ ফেব্রুয়ারি ছাত্রদলের আরও ৩ নেতাকে টিএসসি এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়। এসব ঘটনার পর ক্যাম্পাস থেকে শিক্ষার্থী গ্রেফতারের ঘটনা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে শিক্ষার্থীরাই।

তবে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান বলেছেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের কোনো নিরপরাধ শিক্ষার্থীকে যাতে কোনোভাবে হয়রানি করা না হয় সে ব্যাপারে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর প্রতি আমাদের নির্দেশনা রয়েছে। আর তাছাড়া আইন তার নিজস্ব গতিতে চলে। এখানে বাধা দেওয়ার ক্ষমতা রাখে না।

শিক্ষার্থীরা বলছেন, বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস থেকে শিক্ষার্থী গ্রেফতারের নজির নেই। কিন্তু বর্তমান প্রশাসনের সময় এ ধরনের ঘটনা অহরহই ঘটছে। শুধু এ দুটি ঘটনা নয়, গত কয়েক বছর ধরেই বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বিভিন্ন কারণে শিক্ষার্থী গ্রেফতারের, আটক কিংবা তুলে নিয়ে যাওয়ার ঘটনা ঘটেছে অনেক। ক্যাম্পাস এলাকা থেকে শিক্ষার্থীদের গ্রেফতার নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে শিক্ষার্থীরা।

গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন অনুষদের সামনে থেকে আখতারকে তুলে নেওয়া হয়। পরে রাতে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের যুগ্ম কমিশনার মাহবুব আলম বলেন, সম্প্রতি রাজধানীর মতিঝিলে ছাত্র অধিকার পরিষদের সাথে পুলিশের সংঘর্ষ হয়। এই ঘটনায় দায়ের করা মামলায় তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

পুলিশের সংঘর্ষের ঘটনায় দায়ের করা এক মামলায় গ্রেপ্তার আখতার হোসেন বর্তমানে দুই দিনের রিমান্ডে আছেন। গতকাল বুধবার তার রিমান্ড মঞ্জুর করা হয়।

ক্যাম্পাস থেকে শিক্ষার্থী আটকের বিষয়ে একই কথা জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. এ কে এম গোলাম রাব্বানী। তিনি বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে আইনশৃঙ্খলা রক্ষকারী বাহিনী কোনো ধরনের পদক্ষেপ গ্রহণ করতে আমাদের আগে জানানো হয়। রাষ্ট্রীয় আইন-কানুনের বিষয়ে যদি কোন অভিযোগ থাকে আমরা জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি দেই। তবে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর প্রতি আমাদের নির্দেশনা থাকে, কোন সাধারণ শিক্ষার্থী যাতে কোনোভাবেই হয়রানির শিকার না হয়।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ