আন্দোলনকারীকে চবি ছাত্রলীগের মারধর

পরীক্ষা স্থগিতের প্রতিবাদে চবিতে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ
পরীক্ষা স্থগিতের প্রতিবাদে চবিতে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ  © টিডিসি ফটো

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) প্রক্টর কার্যালয়ে আন্দোলনরত এক শিক্ষার্থীকে মারধর করেছে ছাত্রলীগের এক কর্মী। অভিযুক্ত শিক্ষার্থী মুজাহিদ চৌধুরী শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সহ সভাপতি মোহাম্মদ ইলিয়াসের অনুসারী। তবে বিষয়টি অস্বীকার করেছেন মুজাহিদ। এছাড়া ছাত্রলীগের পক্ষ থেকেও এ ঘটনায় সংগঠনটির সম্পৃক্ততা নেই বলে জানানো হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) দুপুর দুইটার দিকে চলমান পরীক্ষা স্থগিতের আদেশ প্রত্যাহারের দাবিতে স্মারকলিপি দিতে গেলে প্রক্টর, সহকারী প্রক্টরসহ শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি ও সম্পাদকের সামনেই এ ঘটনা ঘটে। মারধরের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর রবিউল হাসান ভূইয়া।

ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী শাহ মোহাম্মদ শিহাব বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের ছাত্র। অন্যদিকে মারধরকারী মুজাহিদ চৌধুরী সংস্কৃত বিভাগের ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের ছাত্র। সে চবি ছাত্রলীগের সাবেক সহ সভাপতি মোহাম্মদ ইলিয়াসের অনুসারী। তার বাবা জাকের হোসেন চাকসুর ডেপুটি রেজিস্ট্রার।

অভিযুক্ত মুজাহিদ চৌধুরী

ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী শাহ মোহাম্মদ শিহাব বলেন, প্রক্টর কার্যালয়ে আমার ফোনে একটি কল আসে। পরে আমি পকেট থেকে ফোনটি বের করি। তখন সে আমার ওপর চড়াও হয়ে মারধরে শুরু করে। পরে সে বলেছে এটা নাকি অনাকাঙ্ক্ষিতভাবে ঘটে গেছে। প্রক্টর স্যার আশ্বাস দিয়েছেন এবং বলেছেন, বিষয়টা দেখবেন।

প্রক্টর রবিউল হাসান ভূইয়া বলেন, বর্তমানে করোনা পরিস্থিতি চলছে এটা সবাই জানি। সেদিক বিবেচনায় আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা প্রক্টর অফিসে স্মারকলিপি দিতে আসলে কয়েকজন প্রতিনিধি ছাড়া বাকি সবাইকে বাইরে অপেক্ষা করতে বলি। পরে শিক্ষার্থীরা বের হতে গেলে এরকম ঘটনা ঘটতে পারে। আমরা বিষয়টি জানার চেষ্টা করছি, পরবর্তীতে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

তবে ছাত্রলীগকর্মী মুজাহিদ চৌধুরী মারধরের বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, আমি ওই ছেলেটার নামও জানিনা এখনো। সেখানে কোনো ভুল বোঝাবুঝি হয়ে থাকতে পারে। আমি তার সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করছি। আশা করি সুষ্ঠু সমাধান হবে। আমি অন্য একটা কাজে সেখানে গিয়ে ছিলাম।

এ বিষয়ে শাখা ছাত্রলীগ সভাপতি রেজাউল হক রুবেল দ্যা ডেইলি ক্যাম্পাসকে বলেন, এটা নিয়ে যেন আর বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি না হয় সেদিকে আমরা লক্ষ্য রাখছি। তবে, ছাত্রলীগের সঙ্গে এটার সম্পৃক্ততা নেই। যেহেতু আমাদের পূর্ণাঙ্গ কমিটি নেই, সেহেতু এখানে ছাত্রলীগের নাম বিক্রি করার সুযোগ নেই।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ