‘প্রতিনিয়ত জীবনের সঙ্গে যুদ্ধ করে পড়ালেখা করেছি’

দিবস
মিতুল আলী   © সংগৃহীত

‘প্রতিনিয়ত জীবনের সঙ্গে যুদ্ধ করে পড়ালেখা করেছি। অনেক ইচ্ছে ছিল রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ালেখা করার। এ ইচ্ছে পূরণ হতে চলেছে। এতে আমি আনন্দিত। এ আনন্দের কথা ভাষায় প্রকাশ করার মত না।’

বুধবার (৩ আগস্ট) এসব কথা বলেন রাবির ২০২১-২০২২ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক প্রথম বর্ষের ‘সি’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় প্রথম হওয়া মিতুল আলী।

জানা গেছে, চাপাইনবাগঞ্জের গোমস্তাপুর উপজেলার নয়াদিয়াড়ী নামোটোলা গ্রামের দরিদ্র কৃষক আব্দুল করিমের ছেলে মো. মিতুল আলী।

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘সি’ ইউনিটে সর্বোচ্চ নম্বর ৯২ দশমিক ৭৫ স্কোর পেয়ে প্রথম হয়েছেন তিনি। এর আগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও মেডিকেলেও চান্স পেয়েছিলেন তিনি।

২০১৯ সালে নয়াদিয়াড়ী হাজী ইয়াকুব আলী মণ্ডল উচ্চ বিদ্যালয় থেকে মাধ্যমিককে জিপিএ-৫ এবং ২০২১ সালে রাজশাহী নিউ গভর্নমেন্ট ডিগ্রী কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিকে একই জিপিএ পেয়ে উত্তীর্ণ হন মিতুল।

ছেলের এমন ফলে উচ্ছ্বাসিত মিতুলের পিতা আব্দুল করিম। তিনি বলেন, ‘আমার ছেলেটা ছোট থেকেই খুব মেধাবী। তাকে লেখাপড়ার জন্য কখনো বলতে হয়নি। আমার ৪ ছেলে ও ১ মেয়ে, তার মধ্যে মিতুল তৃতীয়।’

তিনি বলেন, ‘আমি মূর্খ মানুষ। তাই অন্য সন্তানদের তেমন লেখাপড়া করাতে পারিনি। এখন শুধু স্বপ্ন দেখি মিতুল বড় হয়ে একটা চাকরি করে সমাজের কাছে মাথা উঁচু করে দাঁড়াবে।’


x