সেলিব্রিটি প্রলোভনে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ

ছাত্রী ধর্ষণকারী
অভিযুক্ত অ্যাডভোকেট জাহিদ চৌধুরী  © সংগৃহীত

ইউটিউব সেলিব্রিটি বানানোর প্রলোভন দেখিয়ে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ করেছেন এক আইনজীবী। ভুক্তভোগীর মায়ের অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযুক্ত অ্যাডভোকেট জাহিদ চৌধুরীকে মঙ্গলবার (৪ জানুয়ারি) আটক করে র‌্যাব। এসময় ভুক্তভোগীর ভাইকে আরেক নারীর সাথে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপনে বাধ্য করেন জাহিদ। 

এ বিষয়ে র‌্যাব-১১ সিপিসি-২ কুমিল্লার কোম্পানি অধিনায়ক মেজর মোহাম্মদ সাকিব হোসেন জানান,  গ্রেপ্তার অ্যাডভোকেট জাহিদ চৌধুরী দুই সন্তানের বাবা এবং পরিবার নিয়ে কুমিল্লা নগরের দৌলতপুর রেলগেট এলাকায় থাকেন। কুমিল্লা সদর দক্ষিণ থানাধীন মধ্যম আশ্রাফপুরে একটি ভাড়া বাসায় অপকর্ম করতেন জাহিদ। সেখান থেকে গত সোমবার রাতে তাকে গ্রেপ্তার এবং নির্যাতিত স্কুলছাত্রী, তার ভাই ও আরেক নারীকে উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় গতকাল সদর দক্ষিণ থানায় মামলা হয়েছে। নির্যাতিত ছাত্রীর বাড়ি ব্রাহ্মণবাড়িয়ায়। তার পরিবার ভাড়া থাকে কুমিল্লায়।

আরও পড়ুন- বাড়িতে ঢুকে ছাত্রী ধর্ষণের অভিযোগ

মেজর সাকিব বলেন, গত রবিবার ছাত্রীটির মা আমাদের কাছে এসে বলেন, তার দুই সন্তান নিখোঁজ রয়েছে। এরপর আমরা ছায়া তদন্ত করে ভিকটিমকে উদ্ধার ও ধর্ষককে গ্রেপ্তার করি। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জাহিদ জানিয়েছেন, নির্যাতিত পরিবার তার পূর্বপরিচিত। তিনি প্রায়ই তাদের পড়াশোনা ও অন্যান্য ব্যাপারে সহযোগিতার নামে তাদের বাড়িতে যাতায়াত করতেন। একপর্যায়ে জাহিদ ভুক্তভোগীর কাছে নিজেকে একজন জনপ্রিয় ইউটিউবার হিসেবে পরিচয় দিয়ে বলেন, তিনি বিভিন্ন ছেলে-মেয়েকে ইউটিউব সেলিব্রিটি করার মাধ্যমে আর্থিকভাবে প্রতিষ্ঠিত করেছেন। গত ২৫ নভেম্বর জাহিদ মেয়েটির পরিবারকে না জানিয়ে স্কুল থেকে তাকে নিয়ে আশ্রাফপুরে তার ভাড়া বাসায় যান। তাকে ইউটিউব সেলিব্রিটি, ভালোভাবে পড়াশোনা করানোসহ বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণ করেন। ভুক্তভোগীর মা বিষয়টি টের পেয়ে তাদের নিয়ে গ্রামের বাড়িতে চলে যান। জাহিদ আবার প্রলোভন দিয়ে ১৭ ডিসেম্বর ভুক্তভোগী ও তার ভাইকে তার বাসায় এনে আটকে রাখেন। এরপর জাহিদ আরেক নারীকে (৩২) চাকরি দেওয়ার নামে তার ভাড়া বাসায় নিয়ে আসেন। ভুক্তভোগীর ভাই (২০) ও ওই নারীকে একটি কক্ষে আটকে রেখে তাদের শারীরিক সম্পর্ক স্থাপনে বাধ্য করেন। পরে ভুক্তভোগীকে কয়েক দিন তিনি ধর্ষণ করেন। রাজবাড়ীতে গ্রেপ্তার আশরাফ উদ্দিন (২৪) সদর উপজেলার শহীদ ওহাবপুর ইউনিয়নের রামকান্তপুর গ্রামের আব্দুল বারেকের ছেলে। গত সোমবার রাতে ধর্ষণের অভিযোগে গতকাল সকালে ভুক্তভোগী ছাত্রীর (১৬) মা রাজবাড়ী থানায় একটি মামলা করেন।

আরও পড়ুন- নিরাময় কেন্দ্রে মাদক আখড়া! টর্চার সেলে চলে যৌন নির্যাতন

এদিকে বগুড়ার শেরপুরেও এক ছাত্রী ধর্ষণের শিকার হয়েছে বলে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন ভুক্তভোগীর মা। শেরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শহিদুল ইসলাম বলেন, এক ছাত্রীকে ধর্ষণের ঘটনায় থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। আমরা বিষয়টি খতিয়ে দেখছি। তদন্তে বিষয়টি প্রমাণিত হলে দোষীকে দ্রুত আইনের আওতায় নিয়ে আসা হবে।


মন্তব্য

x