মেডিকেলের ফল বাতিলের সুযোগ নেই, সন্দেহ হলে পুনর্মূল্যায়নের আহবান

ফল
মেডিকেল শিক্ষার্থী  © ফাইল ফটো

২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষার ফলে অসঙ্গতির অভিযোগ তুলে বাতিলের দাবি জানিয়েছেন ভর্তিচ্ছুদের একাংশ। তবে রেজাল্ট বাতিলের কোনো মুযোগ নেই। ফলাফল নিয়ে যারা অসন্তুষ্ট তাদের আবেদন করতে বলেছে স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তর। 

তথ্যমতে, গত ২ এপ্রিল সারাদেশের ১৯টি কেন্দ্রের ৫৫টি ভেন্যুতে  একযোগে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। পরীক্ষার ৫৬ ঘণ্টা পর ফল প্রকাশ করে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ বিভাগ। এর পরই পরীক্ষার্থীদের একটি অংশ ফল বাতিলের দাবি তোলেন।

শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, ওএমআর মেশিনে একটি সেটের জায়গায় অন্য আরেকটি সেটের উত্তর দেয়ায় এই অসঙ্গতি তৈরি হতে পারে। কেননা তারা যেভাবে পরীক্ষা দিয়েছেন সে অনুযায়ী নম্বর পাননি। ফলে অনেকের স্বপ্ন শেষ হয়ে গেছে। তাই পরীক্ষার ফল বাতিল করে তা পুনর্মূল্যায়ন করার দাবি তুলেছেন তারা।

তবে স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তর বলছে, ওএমআর মেশিনে প্রশ্নের সেট ভিন্ন হওয়ার কোনো সম্ভাবনা নেই। কেননা একই প্রশ্নে সবার পরীক্ষা হয়েছে।  এক্ষেত্রে শুধু প্রশ্নের নাম্বারে পরিবর্তন ছিল। ফলে যে উত্তরগুলো ওএমআর মেশিনে ইনপুট করা ছিল সেগুলো ভুল হওয়ার কোনো সম্ভাবনা নেই। কেননা সবার একই প্রশ্নে পরীক্ষা হয়েছে। পরীক্ষার্থীদের এই দাবি অযৌক্তিক।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে ভর্তি পরীক্ষা আয়োজক কমিটির সদস্য সচিব ও স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তরের পরিচালক ডা. এ কে এম আহসান হাবীব দ্যা ডেইলি ক্যাম্পাসকে বলেন, রেজোল্ট নিয়ে যাদের সমস্যা আছে, তাদের আমরা ফল পুন:বিবেচনার জন্য আবেদন করতে বলেছি। সবার ফল নিয়ে তো সমস্যা নেই। যাদের সমস্যা মনে হচ্ছে তারা আবেদন করুক। তাদেরগুলো আমরা চেক করে দেখব।

প্রসঙ্গত, এবার ১ লাখ ১৬ হাজার ৭৯২ শিক্ষার্থী এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেছেন। এদের মধ্যে পাস করেছেন ৪৮ হাজার ৯৭৫ জন। সরকারি মেডিকেলের জন্য উত্তীর্ণ হয়েছেন ৪ হাজার ৩৫০ জন। এবার ভর্তি পরীক্ষায় প্রথম হয়েছেন পাবনা এডওয়ার্ড কলেজের শিক্ষার্থী মিশোরী মুনমুন। তার প্রাপ্ত নম্বর ২৮৭.২৫।


মন্তব্য

এ বিভাগের আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ