পরিস্থিতি আরও জটিল হওয়ার শঙ্কা খুবি প্রশাসনের

পরিস্থিতি আরও জটিল হওয়ার শঙ্কা খুবি প্রশাসনের
খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই শিক্ষার্থী অনশনে  © ফাইল ফটো

বাহিরের কয়েকটি রাজনৈতিক দল নিয়মবহির্ভুতভাবে রাজনীতি মুক্ত খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে এসে অনশনরত শিক্ষার্থীদের নানাভাবে সমর্থন দিচ্ছে বলে জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। এতে তাঁরা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছ থেকে প্রকৃত ঘটনা অবহিত না হয়েই নানা বিরূপ মন্তব্য করছেন, যা বিভিন্ন মিডিয়ায় প্রকাশিত হচ্ছে। এটা খুবই দুঃখজনক, হতাশা ও উদ্বেগের জানিয়ে খুবি প্রশাসন বলছে, এতে পরিস্থিতি আরও জটিল হওয়ার আশংঙ্কা রয়েছে

রবিবার (২৪ জানুয়ারি) গণমাধ্যমে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ শংঙ্কার কথা জানায় খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত কয়েকদিন ধরে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের দু’জন শিক্ষার্থী তাদের শাস্তি প্রত্যাহারের দাবিতে অবস্থান ও অনশন কর্মসূচি পালন করছে। দাবির বিষয়টি বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়ম-কানুন প্রতিপালন করে নিরসনের জন্য তাদেরকে নমনীয় হয়ে দুঃখ বা ক্ষমা চেয়ে শৃঙ্খলা বোর্ডের পত্রের জবাব প্রদানের জন্য খুলনাবাসীর অভিভাবক কেসিসির মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক, বিশ্ববিদ্যালয়ের সর্বোচ্চ প্রশাসনের পক্ষে উপাচার্য একাধিকবার, উপ-উপাচার্য, ডিসিপ্লিন প্রধান, ছাত্রবিষয়ক পরিচালকসহ শিক্ষক এবং এলামনাইবৃন্দ তাদের কাছে যান, বক্তব্য শোনেন, বোঝান এবং পরামর্শ দেন।

“সর্বশেষ মেয়র তাদেরকে এ আশ্বাস দেন যে, সেভাবে পত্র দিলে তিনি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে অনুরোধ করবেন দু’জন শিক্ষার্থীর শাস্তি প্রত্যাহারে সর্বোচ্চ সহানুভূতির সাথে বিবেচনা করতে। কিন্তু ঐ দুই শিক্ষার্থী একটি পত্র দিলেও তারা সেখানে কোনোরকম দুঃখ প্রকাশ বা ক্ষমা চেয়েছেন বলে কর্তৃপক্ষের জানা নেই। শিক্ষকের কাছে এরূপ কোনো ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করা বা ক্ষমা চাওয়া একজন শিক্ষার্থীর জন্য শ্রদ্ধাবোধ, সৌজন্যতা ও মূল্যবোধের পরিচায়ক হলেও তা তারা করেনি।”

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ উদ্বেগের সাথে লক্ষ্য করছে অনশনরত দুজন শিক্ষার্থীর এহেন আচরণ সত্ত্বেও বাইরের কয়েকটি রাজনৈতিক দল বা বিভিন্ন মতাদর্শের সংগঠন নিয়মবহির্ভুতভাবে রাজনীতি মুক্ত খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে এসে অনশনরত শিক্ষার্থীদের নানাভাবে সমর্থন দিচ্ছে। তাঁরা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন বা কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে প্রকৃত ঘটনা অবহিত না হয়েই বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন বা কর্তৃপক্ষ নিয়ে নানা বিরূপ মন্তব্য করছেন যা বিভিন্ন মিডিয়ায় প্রকাশিত হচ্ছে।

“এটা খুবই দুঃখজনক, হতাশা ও উদ্বেগের। এতে পরিস্থিতি আরও জটিল হওয়ার আশংকা রয়েছে কারণ, আপামর খুলনাবাসী, রাজনৈতিক দলসহ সুশীল সমাজ, বুদ্ধিজীবী ও সামাজিক সংগঠন খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়কে রাজনীতি মুক্ত রাখতে বদ্ধপরিকর এবং তারা কখনও কোনো ঘটনায় হস্তক্ষেপ করেননি। এমতাবস্থায় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ সকল মহলের প্রতি খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্ভুত পরিস্থিতি নিরসনে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিধিবিধান সমুন্নত রেখে সমাধানে ভূমিকা রাখার জন্য আহবান জানাচ্ছে।”


মন্তব্য

এ বিভাগের আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ