অংকে ৩৬, ইংরেজিতে ৩৫— জেলাশাসকের ১০ম শ্রেণির রেজাল্ট ভাইরাল

 রেজাল্ট
ভাইরাল হওয়া রেজাল্ট   © সংগৃহীত

রেজাল্ট দেখেই ভবিষ্যদ্বাণী করেছিল স্কুল। এমনকি পাড়াপড়শিরাও। বলেছিল— এ ছেলেকে দিয়ে হবে না কিছু। আত্মীয়-পরিজনদেরও স্থির বিশ্বাস ছিল, বড় হয়ে ছেলে বখে যাবে। ক্লাস টেনে বোর্ডের প্রথম পরীক্ষায় টেনেটুনে পাশমার্ক তুলেছিলেন  ভারতের গুজরাটের ভারুচের এখনকার জেলা শাসক তুষার ডি সুমেরা। তবে তাকে নিয়ে করা ভবিষ্যৎবাণী মেলেনি।

২০১২ সালে ইউপিএসসি পরীক্ষায় বসে আইএএস হন তুষার। আর এখন তিনি গুজরাটের ভারুচের জেলা শাসক। ডিস্ট্রিক্ট ম্যাজিস্ট্রেটও। সম্প্রতি নিজের ক্লাস টেনের মার্কশিট প্রকাশ করেন তুষার। তার প্রাপ্ত নম্বর দেখে চমকে গিয়েছে সবাই।

ইংরেজি, অংক, বিজ্ঞানের মতো বিষয়ে প্রাপ্ত নম্বরে ৩০-এর কোঠাও পেরোতে পারেননি তুষার। ৩৫, ৩৬, ৩৯— এই তার পাওয়া নম্বর। এছাড়া মাতৃভাষাতে পেয়েছিলেন ৪৪। সমাজ শিক্ষায় ৪৫। রেজাল্টে যে দু’টি নম্বর ৬০-এর উপর। তার একটি শারীর শিক্ষা। অন্যটির বিষয় স্পষ্ট নয়।

এমন ছাত্র আইএএস হলেন কীভাবে তা অবশ্য স্পষ্ট করেননি তুষার। তবে তার গল্প আর রেজল্টের ছবি টুইটারে প্রকাশ্যে আসতেই ভাইরাল হয়েছে। তাকে বাহবা দিয়ে টুইট করেছিলেন ছত্রিশগড় ক্যাডারের এক সিনিয়র আইএএস, অবনীশ শরন। সেখানে অনেকেই মন্তব্য করেছেন বোর্ডের পরীক্ষায় খারাপ নম্বর মানেই ভবিষ্যৎ অন্ধকার ভেবে নেওয়াটা আমাদের ভুল। চেষ্টা করলে যে সব সম্ভব, তার প্রমাণ ভারুচের এই জেলাশাসক।

সূত্র: আনন্দবাজার পত্রিকা


x